সিএএ বিরোধী আন্দোলনে মৃত্যু হল আন্দোলনকারী এক প্রৌঢ়ার। একটানা ২৬ দিন ধরে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন সিএএ বিরোধী আন্দোলন চলছে পার্ক সার্কাসে। তবে কোনও রাজনৈতিক নয়, সম্পূর্ণ মানবিকতার টানেই পার্ক সার্কাসে আন্দোলনে সামিল হয়েছিলেন শহরের সাধারণ মানুষ।  শনিবার রাতে আচমকাই বুকে যন্ত্রণা শুরু হয়  ওই প্রৌঢ়ার। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পথেই মৃত্যু হয় ওই আন্দোলনকারীর। 

আরও পড়ুন, 'আমি স্তম্ভিত', মোদী সরকারের বাজেটে কড়া প্রতিক্রিয়া মমতার

গত ৭ ডিসেম্বর থেকে ওই অবস্থানে ছিলেন বছর সাতান্ন-র সিআইটি রোডের বাসিন্দা সামিদা খাতুন। শনিবার গভীর রাতে তিনি হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। প্রথমে ইসলামিয়া হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখান থেকে চিত্তরঞ্জন হাসপাতালে। সেখানে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন চিকিৎসকরা। এক আন্দোলনকারীর দাবি, সামিদা খাতুনের উচ্চ রক্তচাপ এবং ডায়াবিটিস ছিল। অবস্থান মঞ্চ থেকেই তিনি অসুস্থ হন। যদিও সামিদার পরিবারের তরফ থেকে এখনও পর্যন্ত কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় নি। তবে সহ আন্দোলনকারীর মৃত্যুতে পার্ক সার্কাসের আন্দোলন মঞ্চে এখন শোকের ছায়া। তাই সকলেই স্থির করেছেন কোনও স্লোগান ছাড়াই অবস্থান বিক্ষোভ করবেন। 

আরও পড়ুন, জাঁকিয়ে শীত কলকাতায়, শিলাবৃষ্টির সম্ভাবনা উত্তর ভারতে


সিএএ-এনআরসি বিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল গোটা দেশ। আর এই পরিস্থিতিতে প্রতিবাদের নতুন পথ দেখিয়েছে দিল্লির শাহিনবাগ। রাজধানীর আন্দোলনকারীদের মতোই কলকাতার পার্ক সার্কাস ময়দানেও অবস্থান বিক্ষোভে বসেছেন কয়েকশো মহিলা। কিন্তু প্রথম ছন্দপতন ঘটল পার্ক সার্কাসের আন্দোলন মঞ্চে।