ভোটের কার্ডই যদি নাগরিকত্বের প্রমাণ না হয়, তাহলে কি হাজার হাজার অনাগরিক ভোট দিয়ে এই সরকারকে এনেছে? আন্তর্জাতিক কলকাতা বইমেলায় একটি অনুষ্ঠানে এসে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এমনই প্রশ্ন ছুড়ে দিলেন বিশিষ্ট অভিনেত্রী তথা পরিচালক অপর্ণা সেন। কেন্দ্রীয় সরকারের নয়া নাগরিক আইনের কড়া সমালোচনা করে এই অভিনেত্রী বলেন, নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন যাঁরা তারাই  যখন এই আইন চাইছেন না, তাহলে এর বাস্তবতা কী করে সম্ভব। 

এই বলেই অবশ্য থেমে থাকেননি 'মিস্টার অ্যান্ড মিসেস আইয়ার'-এর পরিচালক। অপর্ণা সেন আরও বলেন,সিএএ কীভাবে সরকার কার্যকর করতে চাইছে তাও স্পষ্ট নয়। নোট বাতিলের ফলে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা এমনিতেই ভঙ্গুর। এইরকম এক কঠিন পরিস্থিতিতে এইভাবে কোটি কোটি টাকা কীভাবে খরচ করবে, তা নিয়েও প্রশ্ন তোলেন জাতীয় পুরস্কারপ্রাপ্ত এই অভিনেত্রী। 

তবে এই আইন যখন পাস হয়ে গিয়েছে,তখন তা কোনও রাজ্য মানব না বলাটাও যুক্তিযুক্ত নয় বলে মনে করেন তিনি। আবার এই আইনের বিরুদ্ধে যেভাবে গোটা দেশজুড়ে আন্দোলন তীব্রতর আকার নিয়েছে, তা এড়িয়ে যাওয়াও কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষে কঠিন বলে মত অপর্ণা সেনের। নাগরিকত্ব আইন পাশের পর থেকেই দেশের বিভিন্ন জায়গায় এ নিয়ে প্রতিবাদ হয়েছে। যদিও এতকিছুর পরও সিএএ আইন থেকে যে সরকার সরছে না তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

এদিকে কলকাতা বইমেলায় শনিবার বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার সামনে বিক্ষোভ দেখান কিছু সিএএ প্রতিবাদকারী। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে গেলে পুলিশের সঙ্গে ধ্বস্তধস্তি বেঁধে যায় বিক্ষোভকারীদের। পরে বিধাননগর উত্তর থানায়  এ নিয়ে লিখিত অভিযোগ জানাতে যান তাঁরা। তবে থানায় বিক্ষোভ দেখাতে গেলে পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের খণ্ডযুদ্ধ বেধে যায়। সেই সময় বিক্ষোভকারীরা এক মহিলা পুলিশ কর্মীর চুল ধরে টানেন বলে অভিযোগ।