সম্প্রতি আইসিসিআর কলকাতায় হয়ে গেল গানে, ভাষ্য়পাঠে এবং নৃত্য়ের মধ্য় দিয়ে হয়ে গেল বাবু বিবি সংবাদ। বৃহস্পতিবারের রাতে কনেকনে ঠান্ডার মধ্য়েও  আইসিসিআর কলকাতা রীতিমত উৎসাহী দর্শকে ভর্তি ছিল। পুরোনো কলকাতার আভিজাত্য়পূর্ণ বাঙালির ঐতিজ্য়কে তুলে ধরে, সমগ্র অনুষ্ঠানটির ফুটিয়ে তুলেছে অ্য়াকাডেমি থিয়েটার, ঋদ্ধি বন্দ্য়োপাধ্য়ায় মিউজিক একাডেমি এবং শূন্য়।  কন্ঠ শিল্পী রুপে ছিলেন ঋদ্ধি, দেবজিৎ এবং শ্রাবন্তি। ভাষ্য়পাঠ করেছেন শর্বরী দত্ত, পুনম প্রিয়ম এবং কোরক। নৃত্য় পরিবেশন করেছেন রেশমি এবং সুলগ্না। 

আরও পড়ুন, উত্তরের হাওয়া ক্রমশ বাড়ছে, পৌষের শুরুতেই জাঁকিয়ে শীত কলকাতায়

রেশমি জানালেন, এখানে আঠেরোশো শতক থেকে উনিশশো শতক এর মধ্য়ে  কীভাবে বাবুরা কলাসঙ্গীতের পৃষ্ঠপোষক ছিলেন সেগুলি সবই তুলে ধরা হয়েছে। এবং তারই সঙ্গে বাবুদের বিবিরা কীভাবে জীবন কাটাতেন সেটাও তুলে ধরা হয়েছে। সে কারনে বাবু বিবি সংবাদ-এ ঐতিজ্য়বাহী পুরোনো বাংলা গান রাখা হয়েছে পাশাপাশি তেমনই মঞ্চ গানও পরিবেশন করা হয়েছে। এছাড়াও এখানে  তুলে ধরা হয়েছে  কীভাবে এখানে ভাই-ভাই এ মিলেমিশে থাকা যাবে। যে সম্পৃতির কথা বলেছিলেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, দ্বিজেন্দ্র লাল রায়। শুধু গানই নয় পোশাক-পরিচ্ছদ, আবহের মাধ্য়মেও সেই সময়কে তুলে ধরা হয়েছে। সুলগ্না জানালেন, বাবু বিবি সংবাদ-এ  নটি বিনোদিনী-র কিছু অংশও সেই সময়কে তুলে ধরতে যুক্ত করা হয়েছে।

আরও পড়ুন, বড়দিনের আমেজে সেজে উঠল নিউ মার্কেট, ভিড় জমাল আট থেকে আশি

 শর্বরী দত্ত জানালেন, তিনি দর্শক-শ্রোতা হিসেবে খুবই উপভোগ করেছেন। তিনি আরও জানিয়েছেন, বাবু বিবি সংবাদ-এর মাধ্য়মেই বাঙালির ঐতিজ্য় আরও ছড়িয়ে পড়ুক। দেবজিত বাবু জানালেন, যে ভাবে ন মাস দশ ধরে একটা প্রজনন গড়ে ওঠে, সেভাবেই বাবু বিবি সংবাদ গড়ে তোলা হয়েছে। ঋদ্ধি জানালেন, মহিলাদের প্রতি বরাবর যে অবিচার হয়ে এসেছে, তারা নানা সুযোগ থেকে বঞ্চিত হয়েছে সেটাও তুলে ধরা হয়েছে এখানে। অভিরুপ জানালেন,   তিনিও ভীষনভাবেই খুশী বাবু বিবি সংবাদ-এ নিজের এবং তাঁর ছাত্রীর নৃত্য় পরিবেশনের  মধ্য় দিয়ে। সব মিলিয়ে বলা যায়, বাবু বিবি সংবাদ-র আবহ টেনে নিয়ে গেল দর্শককে উনিশশো শতকের আগের সময়টায়, পুরোনো কলকাতায়।