'চলুন মাস্টারমশাই' ঘুরি বাড়ি বাড়ি'-এর পর এবার 'দুয়ারে দুয়ারে'। বাংলার সাধারণ মানুষের অভাব অভিযোগ জানতে এবার প্রত্যেকের বাড়ি বাড়ি গিয়ে খোঁজ নেবেন প্রশাসনের কর্মীরা। একুশের বিধানসভা ভোটের আগে এবার 'দুয়ারে দুয়ারে' কর্মসূচি শুরু করল তৃণমূল কংগ্রেস। বাঁকুড়া থেকে এই প্রকল্পের কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। জেলায় জেলায় শুরু হয়েছে এই প্রচার কর্মসূচি।

আরও পড়ুন-একুশের ভোটের আগে জনমত সমীক্ষা, কার দখলে দক্ষিণ দিনাজপুর, কে এগিয়ে, কে পিছিয়ে

কলকাতা-'দুয়ারে দুয়ারে' কর্মসূচি শুরু হয়েছে তিলোত্তমাতেও। কলকাতার বিভিন্ন ওয়ার্ডে এই কর্মসূচির কার্যক্রম ঘুরে দেখেন পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের এটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ বলে জানিয়েছেন ফিরহাদ হাকিম। তিনি আরও বলেন, স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে মুক্তির স্বাদ পেয়েছে মানুষ। দুয়ারে দুয়ারে সেই প্রকল্প পৌঁছে দেওয়ায় খুশি সাধারণ মানুষ।

হাওড়া-অন্যদিকে, মঙ্গলবার হাওড়ার ঘুসুড়িতে এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী লক্ষ্মীরতন শুক্লা। একটি হিন্দি মাধ্যম স্কুলে এই কর্মসূচি আয়োজন করা হয়। রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্প সংক্রান্ত অভাব অভিযোগ জানতে আলাদা আলাদা ভাবে বিভাগ করা হয়। সেখানে ছিলেন ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীও। এই কর্মসূচিতে তৃণমূলের বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ রয়েছে। তা জানতে চাওয়া হয় এই 'দুয়ারে দুয়ারে' কর্মসূচির মাধ্যমে।

আরও পড়ুন-বোমাবাজি-বাইক ভাঙচুরে উত্তপ্ত খেজুরি, বিজেপির উপর হামলার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে

নদিয়া-পাশাপাশি,নদিয়াক কৃষ্ণনগরে এই 'দুয়ারে দুয়ারে' কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে কৃষ্ণনগর পুরসভায় কমিউনিটি হলে কর্মসূচির আয়োজন করা হয়। পুরসভার এক ও দু নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের সরকারের বিরুদ্ধে কী কী অভিযোগ রয়েছে। রাজ্যের স্বাস্থ্যসাথী, কন্যাশ্রী, রূপশ্রী প্রকল্প গ্রহণে কোনও সমস্যা হয়েছে কিনা তা জানতে চাওয়া হয় সাধারণ মানুষের কাছে।