সঞ্জীব কুমার দুবে, পূর্ব মেদিনীপুর-একুশের নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে রাজ্যে ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে হিংসা-অশান্তির ঘটনা। শুভেন্দু অধিকারী মন্ত্রিত্ব ছাড়ার পর থেকে আবারও উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হল পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরিতে। দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়াল তৃণমূল ও বিজেপি। বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা-বোমাবাজি ও বাইক ভাঙচুরের অভিযোগ।

আরও পড়ুন-উত্তরবঙ্গে বড়সড় ধাক্কা খেল গেরুয়া শিবির, তৃণমূলে যোগ দিলেন গত বিধানসভার বিজেপি প্রার্থী

কয়েকদিন আগেই খেজুরি এলাকায় তৃণমূলের ছয়টি পার্টি অফিস দখলের অভিযোগ উঠেছিল বিজেপির বিরুদ্ধে। রাতের অন্ধকারে কে বা কারা তৃণমূলের পতাকা নামিয়ে বিজেপির পতাকা তুলে দেয়। সেই ঘটনাকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি উত্তপ্ত হয়েছিল। তার কয়েকদিন যেতে না যেতেই নতুন করে উত্তেজনা দেখা দিল খেজুরিতে। বিজেপির পতাকা উত্তোলন ঘিরে দফায় দফায় সংঘর্ষে জড়ায় তৃণমূল ও বিজেপি।  বিজেপি কর্মী সমর্থকদের উপর হামলা-বোমাবাজি ও বাইক ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

আরও পড়ুন-শুভেন্দুকে অনুসরণ, জেলা পরিষদের মেন্টর পদ ছাড়লেন তৃণমূল নেতা প্রণব বসু

মঙ্গলবার ঘটনাটি ঘটেছে খেজুরির নিকসবা অঞ্চবের বোগা মোড় ও রসুলপুরে। জানাগেছে, এই এলাকায় বিজেপির কর্মসূচি ছিল। রসুলপুরে বিজেপি কর্মসূচি শেষ করে ফেরার পথে কর্মী সমর্থকদের উপর হামলার অভিযোগ ওঠে তৃণমূলের বিরুদ্ধে। ঘটনার জেরে উত্তপ্ত পরিস্থিতি তৈরি হয় গোটা এলাকায়। বিজেপি কর্মীদের কমপক্ষে পনেরোটি বাইকে ভাঙচুরের অভিযোগ ওঠে। শুধু তাই নয়, ওই এলাকায় তৃণমূল ব্যাপক বোমাবাজি করে বলে অভিযোগ। ঘটনার প্রতিবাদে ওই এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে বিজেপি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় বিশাল পুলিশ বাহিনী।

বিজেপির উপর হামলার ঘটনা পুরোপুরি অস্বীকার করেছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তাঁদের অভিযোগ, এটা বিজেপির অন্দদ্বন্দ্বের ফল। রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় হিংসা ছড়াচ্ছে বিজেপি কর্মী সমর্থকরা। অন্যদিকে, বিজেপির দাবি, তৃণমূলের আশ্রিত দুষ্কৃতীরা তাঁদের কর্মীদের সমর্থকদের উপর হামলা চালিয়েছে। পুলিশ চারজন বিজেপি সমর্থকেক আটক করেছে বলেও দাবি তাঁদের। উল্লেখ্য, বিধানসভা ভোটের আবহে নতুন করে উত্তপ্ত হল পূর্ব মেদিনীপুরের খেজুরি এলাকা।