''সব বাকি থাকা ইস্যুতে আমাদের আলোচনা হয়েছে। বাড়তি টাকা দেওয়ার কথা বলেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মিরিক লেক এর বিষয়ে আলোচনা হয়েছে এদিনের বৈঠকে''। মঙ্গলবার নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর সঙ্গে কথা বলার পর এই কথা বললেন গোর্খা জনমুক্তি মোর্চার সভাপতি বিনয় তামাং। রাজনৈতিক বিষয়ে আলোচনা প্রসঙ্গে বিনয় তামাং আরো জানান, আমরা চাই শান্তি থাকুক পাহাড়ে। একই সঙ্গে তিনি বলেন, বিমল গুরুং কে ? কেন তাকে এতো গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। এদিনের নবান্নের বৈঠকে তাকে নিয়ে কোন আলোচনা হয়নি বলেও পরিষ্কার জানান তিনি । 

একই সঙ্গে তিনি বলেন, পাহাড়ে বিমল গুরুং এর বিরুদ্ধে মিছিল হচ্ছে, কিন্তু সেটা মানুষের ক্ষোভ এর বহিঃপ্রকাশ এর সঙ্গে আমাদের সফরের কোন সম্পর্ক নেই। বিমল গুরুং এর চ্যাপ্টার বন্ধ হয়ে গেছে। পাহাড়ে এই তিন বছরে কোন খুন হয়নি, কোথায় কোন সমস্যা হয়নি। মানুষ পাহাড়ে ভালো আছে। সেখানে অনেক পর্যটক যাচ্ছে।

বিমল গুরুং ফের পাহাড়ে যেতে চায়। সেই প্রসঙ্গে বিনয় তামাং বলেন, বিমল গুরুং এর বিরুদ্ধে একাধিক মামলা আছে। সেই গুলো সব বর্তমানে বিচারাধীন মামলা। কেউ বিচারের উর্ধ্বে নয়। আমাদের বিরুদ্ধেও মামলা আছে আমরা বিচার ব্যবস্থাকে সম্মান করি। কিন্তু বিমল গুরুং বিচার ব্যবস্থাকে সম্মান করে না। 

আমি কোন দিন বিমল গুরুং এর সঙ্গে একই রাজনৈতিক সমাবেশে থাকতে পারবো না বলে এদিন ফের  জানিয়েছেন বিনয় তামাং। সঙ্গে তিনি বলেন, দেশের নাগরিক হিসাবে সে তার বাড়িতে যাওয়ার কথা বলতেই পারে কিন্তু আমরা চাই পাহাড়ের শান্তি যেন নষ্ট না হয়। সঙ্গে ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, আমি বিমল গুরুং এর নাম শুনতে শুনতে ক্লান্ত। তবে, বিমল গুরুং ময়দানে নেই। আমরা মাঠে আছি। মানুষের পাশে আছি। 

এই পরিপ্রেক্ষিতে জিটিএ চেয়ারম্যান আনীত থাপা জানান,  সিঙ্কনা প্ল্যান্টেশন নিয়ে আমাদের মূল আলোচনা হয়েছে নবান্নে। এই বিষয়ে মুখ্যসচিব এর সঙ্গে কথা হয়েছে। তিনি জানিয়েছেন এই সমস্যা সমাধান হবে। এতে পাঁচ থেকে ছয় হাজার কর্মীর প্রমোশন জড়িয়ে আছে। 

গোর্খাল্যান্ড ইস্যুতে জিজ্ঞাসা করা হলে আনীত থাপা বলেন, শেষ কয়েক দশকে পাহাড়ে কোন উন্নয়ন হয়নি। আমরা চাইছি পাহাড়ের উন্নয়ন হোক। পাহাড়ের মানুষের কর্মসংস্থান হোক। মানুষের জন্য আমরা আগে কাজ করতে চাই। পাহাড়ের সব মানুষ চায় গোর্খাল্যান্ড। এটা আমাদের মা।  কিন্তু রাজনৈতিক নেতারা এটাকে রাজনৈতিক স্বার্থে ব্যবহার করেছে।
তবে এদিনের সাংবাদিক সম্মেলনে বিনয় তামাং আশ্বস্থ করে জানান, আগামী বিধানসভা নির্বাচনে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর সঙ্গে থাকবেন। একই সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও তার সঙ্গে থাকবেন বলে দাবি করেন বিনয় তামাং।