টাকার প্রলোভনের পর এবার ভুয়ো ভিডিয়ো ছড়ানোর অভিযোগ আনলেন তৃণমূল নেত্রী। সিএএ ও এনআরসি বিরোধী মিছিলে মুখ্যমন্ত্রী দাবি করেন,রাজ্য়ে হিংসা ছড়াতে বাংলাদেশের ভিডিয়ো বাংলায় ছড়াচ্ছে বিজেপি। এসব ভুয়ো ভিডিয়ো দেখে উত্তেজিত হবেন না। বিজেপির মোকাবিলা করা হবে গণতান্ত্রিক পথে।

রাজ্য়ে এনআরসি বিরোধী বিক্ষোভের নামে ৯৯ শতাংশ ভুয়ো ভিডিয়ো ছড়ানো হয়েছে। এই কাজের পিছনে রয়েছে বিজেপির হাত। বাংলাদেশের ভিডিয়োকে বাংলার ভিডিয়ো বলে দেখাচ্ছে বিজেপির লোকজন। রাজ্য়ে হিংসাত্বক পরিবেশ সৃষ্টি করতে চাইছে তারা। গেরুয়ায় বাহিনীর এই ফাঁদে পা দেবেন না। বৃহস্পতিবার নাগরিকত্ব আইন বিরোধী মিছিলে মল্লিক বাজার থেকে এমনই বার্তা দিলেন মমতা।

তৃণমূল নেত্রীর অভিযোগ, রাজ্য়ে বিভাজনের রাজনীতি করতে টাকা ছড়ানো হচ্ছে। বিজেপির এই টোপ না গিলতে এদিন সংখ্যালঘু এলাকায় বার্তা দেন মমতা। তিনি বলেন, মুর্শিদাবাদ থেকে ভুয়ো ভিডিয়ো ছড়ানোর জন্য় ইতিমধ্য়েই একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ওরা উত্তরপ্রদেশের ভিডিয়ো বিহারের বলে চালাচ্ছে। আপানাদের কাছে অনুরোধ এই প্ররোচনায় পা দেবেন না। 

কদিন আগেই সিএএ-র প্রতিবাদে দেশের বেশ কয়েকটি বিশ্ববিদ্য়ালয়ের ছাত্রছাত্রীরা রাজপথে প্রতিবাদে  নামে। জামিয়া ছাত্রছাত্রীদের মিছিল ঘিরে উত্তাল হয় রাজধানী। অভিয়োগ, ছাত্র ছাত্রীদের হস্টেল এমনকী লাইব্রেরিতে ঢুকেও প্রবিদাকারীদের লাঠিচার্জ করে পুলিশ। যার প্রতিবাদে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় প্রেসিডেন্সি ছাড়াও বহু ছাত্রছাত্রী রাজ্য়ে বিক্ষোভ দেখায়। এদিন সেই ছাত্রছাত্রীদের পাশে থাকার আশ্বাস  দেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন,ছাত্র আন্দোলনের পাশে আছি। আন্দোলন করলে পড়ুয়াদের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। আন্দোলনের ভয়ে হস্টেল বন্ধ করে দেওয়া হচ্ছে। ওই সব ধমকে কিছু হবে না।

এদিন সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতায় পথে নামেন মুখ্যমন্ত্রী। রাজাবাজার থেকে মহামিছিল শুরু করে মল্লিক বাজারে সভা করেনি তিনি। সেই সভা থেকেই ছাত্রদের বার্তা দেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি মোদী অমিত শাহকেও হুঁশিয়ারি দেন মমতা। মুখ্য়মন্ত্রী বলেন,রাজ্য়ে বিভাজনের রাজনীতি করতে দেব না। আগুন নিয়ে খেলবেন না।