অসম থেকে এ রাজ্যে এসেছিলেন। দিনেদুপুরে রাস্তায় নৃশংসভাবে খুন হয়ে গেলেন এক ব্যবসায়ী। বছরের শেষদিনে আতঙ্ক ছড়াল হাওড়া শহরে। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, রাস্তায় দুষ্কৃতীদের খপ্পরে পড়েছিলেন ভিনরাজ্যের ওই ব্যবসায়ী। লুঠ করতে গিয়ে বাধা পেয়ে তাঁর পেটে দুষ্কৃতীরা ছুরি চালিয়ে যায়।

মৃতের নাম ভীম ভট্টরাই। বছর পঁয়তিরিশের ওই যুবকের বাড়ি অসমের কার্বি আলং-এর উমালাফের গাঁও এলাকায়। মঙ্গলবার সকালে ভীমকে হাওড়ার ফরশোর রোড ধরে শিবপুর কয়লা ডিপোর দিকে ছুটে যেতে দেখেন স্থানীয় বাসিন্দারা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, পেটে ছুরিবিদ্ধ অবস্থায় দৌড়চ্ছিলেন তিনি। শিবপুর কয়লা ডিপোর কাছে রক্তাক্ত অবস্থায় রাস্তায় লুটিয়ে পড়লে, ভীমকে উদ্ধার করে স্থানীয় বাসিন্দারা হাওড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু শেষরক্ষা হয়নি।  হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার কিছুক্ষণ পরেই মারা যান ভীম ভট্টরাই। ঘটনাটি জানাজানি হতেই চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে হাওড়ার শিবপুরে।

আরও পড়ুন: চোখে রাসায়নিক স্প্রে করে লুঠ নগদ টাকা ও সোনা, চাঞ্চল্য বর্ধমানে

খবর পেয়ে হাওড়া স্টেট জেনারেল হাসপাতালে পৌঁছয় পুলিশ। মৃতের পকেট থেকে উদ্ধার হয় একটি পরিচয়পত্র পাওয়া যায়। তা থেকে জানা যায় ওই যুবকের পরিচয়।  অসমে তাঁর বাড়িতে পুলিশ খবর পাঠিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। কিন্তু অসম থেকে হাওড়ায় কেন এসেছিলেন ভীম ভট্টরাই? কেনই বা খুন হয়ে গেলেন তিনি? তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।