আস্থা ভোট ঘিরে বনগাঁয় অশান্তির ঘটনায় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করল কলকাতা হাইকোর্ট। এ দিন বিষয়টি হাইকোর্টের বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের নজরে আনেন বিজেপি কাউন্সিলরদের আইনজীবী। এর পরেই ক্ষুব্ধ বিচারপতি মন্তব্য করেন, শাসক দল এবং পুলিশ এক হয়ে কাজ করছে। 

আরও পড়ুন- আস্থা ভোট ঘিরে তুলকালাম বনগাঁয়, সংঘর্ষের মধ্যেই ফাটল স্টান গ্রেনেড, দেখুন ভিডিও

কলকাতা হাইকোর্টের অনুমতি নিয়েই বনগাঁ পুরসভায় অনাস্থা প্রস্তাব আনেন তিন বিজেপি কাউন্সিলর। অভিযোগ, মঙ্গলবার নির্ধারিত দিনে আস্থা ভোট হলেও সেখানে অনাস্থা আনা বিজেপি কাউন্সিলরদেরই ঢুকতে দেওয়া হয়নি। পুলিশও বিজেপি কাউন্সিলরদের বাধা দেয় বলে অভিযোগ। এই নিয়ে মঙ্গলবার তুলকালাম কাণ্ড হয় বনগাঁয়। পুলিশের বিরুদ্ধে তৃণমূলের হয়ে কাজ করার অভিযোগ তোলে বিজেপি। হাইকোর্টের নির্দেশ দেখেও বিজেপি কাউন্সিলরদের পুলিশ পুরসভায় ঢুকতে দেয়নি বলে অভিযোগ। শেষ পর্যন্ত বিজেপি কাউন্সিলরদের অনুপস্থিতির সুযোগে আস্থা ভোটে জয়ী হয় তৃণমূল। 

এ দিন সকালে বিষয়টি কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতির নজরে আনেন বিজেপি কাউন্সিলরদের আইনজীবীরা। বিচারপতি তখন তাঁদের বিষয়টি হলফনামা আকারে জমা দেওয়ার পরামর্শ দেন। এর পরে বিধাননগর পুরসভার  মেয়র সব্যসাচী দত্তের দায়ের করা মামলার শুনানির সময় ক্ষুব্ধ বিচারপতি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, 'আইন মাফিক কাজ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলাম। কিন্তু চেয়ারম্যান অনাস্থাই আনতে দেননি। মঙ্গলবার বনগাঁয় কী হয়েছে, তা টেলিভিশনের পর্দায় গোটা রাজ্যের মানুষ দেখেছেন। পুলিশ সেখানে শাসক দলের এবং চেয়ারম্যানের হয়ে কাজ করেছে।'