দুর্গাপুজোয় ক্লাবগুলিকে ৫০ হাজার টাকা অনুদান দেওয়া নিয়ে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছে কলকাতা হাইকোর্টে। এছাড়া পুরোহিতদের ভাতা কেন দেওয়া হবে সেবিষয়েও মামলা হয়েছে। মামলা করেন দুর্গাপুরের সিটু নেতা সৌরভ দত্ত৷ বিচারপতি সঞ্জীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চে আগামী বুধবার শুনানি রয়েছে দুর্গাপুজো অনুদান মামলার। ফলে সাম্প্রতিক এই জোড়া ইস্যু নিয়ে এবার কোর্টের আঙিনায় বেশ 'চাপে' রাজ্য সরকার। 

২০১৮ সালে দুর্গাপুজো কমিটিগুলিকে ১০ হাজার টাকা অনুদান দেয় রাজ্য সরকার। সরকারি কোষাগারের অর্থ এভাবে পুজো কমিটিগুলিকে দেওয়া হলে তা সাংবিধানসম্মত নয় বলে অভিযোগ তুলে জনস্বার্থ মামলা দায়ের হয়েছিল হাইকোর্টে। তখন রাজ্য সরকার আদালতে জানিয়েছিল 'সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ' এর প্রচারের জন্য সরকার ক্লাবগুলিকে ওই টাকা দিয়েছে৷ 

এদিকে রাজ্য সরকার এবছর  অনুদানের অর্থ বাড়িয়ে ৫০ হাজার টাকা করেছে। এনিয়ে রাজনৈতিক মহলেও প্রশ্ন উঠেছে। এছাড়া গত ১৪ সেপ্টেম্বর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যের ৮ হাজার পুরোহিতকে মাসিক ১ হাজার টাকা করে ভাতা দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেন। এই দুটি ইস্যু নিয়েই জনস্বার্থ মামলা দায়ের করেন দুর্গাপুরের সিটু নেতা সৌরভ দত্ত। 

তাঁর বক্তব্য, জনগণের করের টাকা রাজ্য সরকার এভাবে নির্দিষ্ট একটি ধর্মালম্বী মানুষের উৎসবে খরচ করতে পারে না। এটা অবৈধ ও অসাংবিধানিক। এছাড়া এর আগে রাজ্য সরকারের তরফে ইমামদের ভাতা দেওয়া নিয়েও হাইকোর্টে জনস্বার্থ মামলা হয়েছিল। সেখানে বিচারপতি প্রণব চট্টোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ ইমামভাতা দেওয়াকে অবৈধ ও অসাংবিধানিক বলে রায় দিয়েছিল। ফলে এখন পুরোহিতদেরও এভাবে ভাতা দেওয়া যায় না। এছাড়া সরকার এটা বাজেট পেশের সময় উল্লেখও করেনি।