বউবাজারের দুর্গা পিতুরি লেনে পৌঁছলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইস্ট ওয়েস্ট মেট্রোর কাজের জন্য বউবাজারের ওই এলাকায় রবিবার থেকেই একাধিক বাড়িতে ফাটল ধরতে শুরু করে। আশঙ্কায় ওই সমস্ত বাড়ির বাসিন্দাদের অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে গিয়েছে মেট্রো কর্তৃপক্ষ। গোটা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতেই এ দিন দুর্গা পিতুরি লেনে যান মুখ্যমন্ত্রী। 

কীভাবে মেট্রোর কাজ করতে গিয়ে এভাবে ফাটল ধরল, মেট্রো রেলের ইঞ্জিনিয়ারদের পাশাপাশি রাজ্য সরকারের আধিকারিকদের থেকেও তা বুঝে নেওয়ার চেষ্টা করেন মুখ্যমন্ত্রী। কতজন বাসিন্দাদের সরিয়ে নেওয়া হয়েছে, কোথায় তাঁদের রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে, তাও জেনে নেন মুখ্যমন্ত্রী। এলাকার বাসিন্দাদের সঙ্গেও কথা বলেন মুখ্যমন্ত্রী। এখনও পর্যন্ত পনেরোটি পরিবারকে অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। 

দুর্গা পিতুরি লেনের পাশাপাশি স্যাঁকরাপাড়া লেনেও বেশ কয়েকটি বাড়িতে বড়সড় ক্ষতি হয়েছে। একটি বাড়ির গায়ে অন্য একটি বাড়িও হেলে পড়েছে। এ দিকে কেন এই বিপর্যয়, তা জানতে এ দিন থেকেই কাজ শুরু করেছেন মেট্রো রেলের বিশেষজ্ঞরা।

জানা গিয়েছে, মঙ্গলবার গোটা বিষয়টি নিয়ে নবান্নে মেট্রো কর্তৃপক্ষের সঙ্গে বৈঠক করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তার আগে এলাকায় এসে গোটা পরিস্থিতি সরোজমিনে দেখে গেলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মেট্রো কর্তৃপক্ষ ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন, সুড়ঙ্গের মধ্যে বিপুল পরিমাণ জল ঢুকে মাটি বসে গিয়েই বিপত্তি হয়েছে। যদিও, ভবিষ্যতে এমন বিপর্যয় এড়াতে আর কোনও ঝুঁকি নিতে নারাজ রাজ্য সরকার। 

এখানকার বাসিন্দাদের সঙ্গে কথা বললাম, যাঁদের ঘরবাড়ি ভেঙে গিয়েছে। এতবড় বিপর্যয় ঘটে গিয়েছে। সঙ্গে সঙ্গে উদ্ধারকাজ শুরু না হলে অনেকের জীবন সংশয় হতে পারত। আমরা মঙ্গলবার বিকেল তিনটের সময় এই বিষয় নিয়ে আলোচনা করার জন্য বৈঠক ডেকেছি। সেই বৈঠকেই গৃহহীন পরিবারগুলির পুনর্বাসন নিয়ে আলোচনা করা হবে। এমন ভাবে পরিকল্পনা করতে হবে যাতে সাধারণ মানুষের কোনওরকম হয়রানি না হয়। মানুষ তো জরুরি সব জিনিসই বাড়িতে ফেলে চলে এসেছেন।'  মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, বৈঠকে মেট্রো কর্তৃপক্ষ ছাড়াও কলকাতার পুলিশ কমিশনার, মেয়র, স্থানীয় সাংসদরা থাকবেন বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন, বিপর্যয়ের দায়িত্ব নিয়েছে মেট্রো রেল। এর মধ্যে তিনি কোনও রাজনীতি চান না। একসঙ্গে কাজ করে এই ধরনের বিপর্যয় এড়ানোর কথাও বলেন মমতা। মেট্রো রেলকে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতিও দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। মেট্রো রেল সমস্ত রকম সাহায্যের আশ্বাস দিয়েছে বলেও জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

মেট্রোর কাজে পরিকল্পনার গলদ ছিল কি না, তা নিয়েও কিছু বলতে চাননি মুখ্যমন্ত্রী। তিনি জানান, গোটা বিষয়টি ভালভাবে না জেনে কোনও মন্তব্য করবেন না তিনি।