গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় ও চিনা সংঘাতের পর  চিনা সামগ্রী বয়কটের ডাক দেওয়া হয় দেশ জুড়ে। তবে এখন সেসব বোধয় কয়েকমাসেই স্মৃতি। দীপাবলির মুখে  শহরের বাজার ছেয়েছে ফের চিনা আলোয়। 

আরও পড়ুন, দীপাবলিতে বাজি রুখতে কড়া কলকাতা পুলিশ, এই নম্বরে ফোন করলেই ব্যবস্থা নেবে লালবাজার

 

 

 আর কি মনে পড়ে গালওয়ানের কথা


ভারত-চিন সীমান্তে উত্তেজনা বাড়তেই দেশের বাজার থেকে চিনা সামগ্রী ব্যবহার বন্ধের ডাক সর্বত্র দেখা যায়। গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় ও চিনা সংঘাতের পর  চিনা সামগ্রী বয়কটের ডাক দেওয়া হয় এবং সোশ্যাল মিডিয়া থেকে সর্বত্র পোস্টার পড়েন, চিনা সামগ্রী বয়কট করুন। কলকাতাও তার ব্যতিক্রম নয়। খাবারের থেকে শুরু করে সর্বত্র চিনা দ্রব্য বাতিলের দৃশ্য উঠে আসে। তবে সব কিছুই তো হল, দীপাবলিতে বাড়ি সাজাতে গিয়ে যদি সস্তায় চিনা আলোয় ভরে ওঠে নিজের বাড়ি তাহলে কি আর মনে পড়ে গালওয়ানের কথা।

আরও পড়ুন, ঠাকুরপুকুরে বাজিতে জল ঢেলে নিষ্ক্রিয় করল মহিলারা, ওদিকে উলটপূরাণ সল্টলেকে

 দীপাবলির মুখে দেদার বিকোচ্ছে চিনা আলো

শহরের দীপাবলির মুখে দেদার বিকোচ্ছে চিনা আলো। জানবাজার থেকে গড়িয়াহাট সর্বত্রই চায়না বাতি। ২০ টাকা থেকে ২২০ টাকা সব দামেই রয়েছে। প্লাস্টিকের বৈদ্যুতিন মোমবাতি মাত্র ১০ টাকায়। ৩০ পুটের মিনিয়েচার আলোর দাম ২২০ টাকা। এছাড়াও রয়েছে স্টিক লাইট, স্টার লাইট। তবে বাংলার মাটির প্রদীপের দোকানগুলিই রয়েছে পড়ে শুধু খালি। দীপাবলি মুখে অবশেষে উধাও দেশ প্রেম, চায়না আলোয় ডুবেছে শহর।