তখন বড়পর্দায় 'আইটেম নম্বর'-র রমারমা ছিল না। সাতের দশকে পায়ের ছন্দ আর শরীরী বিভঙ্গে ঝড় তুলেছিলেন তিনি। মিস শেফালির মৃত্যুতে টুইট করে শোকজ্ঞাপন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।  

সেকালে পার্ক স্ট্রিটে নামজাদা হোটেলে মিস শেফালি-এর ক্যাবারে ডান্স দেখতে ভিড় করতেন বহু মানুষ। বাদ যাননি উত্তমকুমার, সত্যাজিৎ রায়ের মতো খ্যাতিমানরাও। তবে স্রেফ ক্যাবারই নয়, নাচের অন্যন্য ধারা বা স্টাইলেও সমান স্বচ্ছন্দ ছিলেন মিস শেফালি। নাচের সুবাদে সিনেমাতেও কাজ করার সুযোগ পেয়েছিলেন।  সত্যজিৎ রায় পরিচালিত 'প্রতিদ্বন্দ্বী' ও 'সীমাবদ্ধ' ছবিতে অভিনয় করেছিলেন শেফালি। কিন্তু শিল্পীর মর্যাদা না পাওয়ার আক্ষেপ ছিল তাঁর। শেষজীবনে চরম অর্থাভাবে ভুগতে হয় একদা কলকাতার 'রাতের পরী'-কে।   

আরও পড়ুন: 'কারও কাছে আমার জন্য যদি এতটুকু সময় না থাকে, তা হলে আমি কী করব'

জানা গিয়েছে, গত বেশ কয়েকদিন ধরে বার্ধক্যজনিত অসুস্থতায় ভুগছিলেন শেফালি।  নষ্ট হয়ে গিয়েছিল তাঁর দুটি কিডনিই।  বৃহস্পতিবার ভোরে সোদপুরে নিজের বাড়িতে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন 'ক্যাবারে কুইন' মিস শেফালি। খবর ছড়িয়ে পড়তে শোকের ছায়া নামে টালিগঞ্জে।  টুইট করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।