দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের জেরে গরুর দুধ নিয়ে ব্যাংকে লোন চাইতে হাজির বাম-কংগ্রেস কর্মীরা। আজ সল্টলেকের পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকে গরুর দুধ নিয়ে লোন চেয়ে বিক্ষোভ দেখায় বিধাননগর বাম-কংগ্রেসের নেতৃবৃন্দ। কলকাতার বিধান ভবনে বিজেপির আক্রমণের বিরুদ্ধে আজ বিক্ষোভ কর্মসূচির আয়োজন করে কংগ্রেস। সেই বিক্ষোভে আজ পিএনবি মোড় অবরোধ কর্মসূচিতে যোগ দেন সল্টলেকের নেতৃত্ব। তবে বিধাননগর পুলিশের পক্ষ থেকে ১৪৪ ধারা জারি থাকায় পথ অবরোধ কর্মসূচি বন্ধ করে কংগ্রেস। তবে গরু নিয়ে এসে তার দুধ নিয়ে পাঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাংকে যান কংগ্রেসের প্রতিনিধিরা। ম্যানেজারের কাছে সোনার দুধের পরিপ্রেক্ষিতে লোনের আবেদন করেন বাম-কংগ্রেস সমর্থকরা। যা দেখে কিছুটা হকচকিয়ে যান ব্য়াঙ্কের ম্যানজারও। 

কদিন আগেই  বর্ধমানের টাউন হলে গাভী কল্যাণ সমিতির এক অনু্ষ্ঠানে দিলীপ ঘোষ বলেন, গরুর পিঠের কুঁজে স্বর্ণনাড়ি আছে। সেখানে রোদ পড়লে তা সোনার মতো চকচক করে। তাই গরুর দুধ সোনালি হয়। বিজেপির রাজ্য সভাপতির এই মন্তব্য প্রকাশ্য়ে আসতেই তা সোশ্য়াল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে যায়। এমনকী বিদেশের সংবাদপত্রেও দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য মুহূর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে। বিরোধীরা তো বটেই সোশ্যাল মিডিয়ার  দিলীপের গোতত্ত্ব নিয়ে মসকরা শুরু হয়ে যায়।

যদিও নিজের বক্তব্যে অনড় থাকেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তিনি বলেন,গরু নিয়ে তিনি যে কথা বলেছেন তা ঠিক বলেছেন। যারা তাঁর বিরুদ্ধে গরু নিয়ে হাসি মসকরা করছেন , তাঁরা সোশ্য়াল মিডিয়ায় প্রচার পেতে এই ধরনের কাজ করছেন। এদিন তিনি বলেন, 'আমার কথা শুনে অনেকেই নাকি গরু নিয়ে গোল্ড লোন নিতে চলে যাচ্ছেন। এসব যাঁরা করছেন, তাঁরা গরুর চেয়েও কম বোঝেন।' এই বলেই অবশ্য থেমে থাকেননি দিলীপবাবু। তাঁর আরও সংযোজন, গাধারা যেমন গরু সম্পর্কে কিছুই জানে না, তেমন অনেকেই গরু নিয়ে কিছু বোঝেন না। কেউ প্রমাণ করে দেখাক যে আমি ভুল বলেছি। আমি রোজ গরুর দুধ খাই।