করোনার বিরুদ্ধে লড়াই চলছে, রোগীর বিপদ কাটেনি এখনও। কিন্তু জন্মদিনে অন্তত ভেন্টিলেশন থেকে তো বের করে আনা গিয়েছে। সেটাই বা কম কী! হাসপাতালে বৃদ্ধের জন্মদিন পালন করলেন সকলেই। মানবিকতার নজির কলকাতায়।

আরও পড়ুন: করোনা আবহে তালা ঝুলল কারখানায়, রোজগারের চিন্তায় ৯০ জন শ্রমিক

করোনাভাইরাস থেকে কবে যে মুক্তি মিলবে! দেখতে দেখতে পাঁচ মাস পেরিয়ে গেল। সংক্রমণ কমার তো লক্ষ্মণই নেই, উল্টে যতদিন যাচ্ছে, পরিস্থিতি যেন আরও ঘোরালো হয়ে উঠছে। সুস্থতার হার আগের থেকে অনেকটা বেড়েছে ঠিকই। কিন্তু আক্রান্তের সংখ্যা? লাফিয়ে লাফিয়ে বেড়েছে। বিপদ সবচেয়ে বেশি বয়ষ্কদের।

দিনটা ছিল ১৬ অগাস্ট। স্বাধীনতা দিবসের পরের দিন করোনা আক্রান্ত হয়ে ঢাকুরিয়ার আমরি হাসপাতালে ভর্তি হন সুবীর দত্ত নামে এক ব্যক্তি। তীব্র শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন তিনি। চিকিৎসকরা আর ঝুঁকি নেননি, ভর্তির হওয়ার চারদিন পরেই রোগীকে ঢুকিয়ে দেওয়া হয় ভেন্টিলেশনে। কিন্তু তাতেও সমস্য়া মেটেনি। ভেন্টিলেশনে থাকালীন আবার হৃদরোগে আক্রান্ত হন সুবীর। শেষপর্যন্ত অবশ্য বড় কোনও বিপদ হয়নি। চিকিৎসকদের নিরলস চেষ্টা সুস্থ হয়ে উঠেছেন তিনি।

আরও পড়ুন: বাড়িতে ঢুকে পড়ল কিং কোবরা, বরাতজোরে রক্ষা পেলেন গৃহস্থ

সোমবার ছিল সুবীর দত্তের জন্মদিন। ঘটনাচক্রে, সেদিন তাঁকে ভেন্টিলেশন থেকে বের করে আনা হয়। শুধু তাই নয়, বিষয়টি জানার পর হাসপাতালে ধুমধাম করে ওই বৃদ্ধের জন্মদিনও পালন করলেন চিকিৎসক ও নার্সরা। তবে এখনও রোগীকে হাসপাতাল থেকে ছাড়া হচ্ছে না, আপাতত রাখা হবে পর্যবেক্ষণে।