করোনা আতঙ্কের জের। দিল্লির পর এবার বন্ধ হতে শুরু করল কলকাতার স্কুল। শুক্রবার দরকার ছাড়া পড়ুয়াদের স্কুলে না আসার বিজ্ঞপ্তি জারি করেছে স্কুল কর্তৃপক্ষ। কার্যত নজিরবিহীন এই সিদ্ধান্ত জানিয়ে নেওয়া হয়েছে স্কুলের তরফে।

স্কুলের তরফে জানানো হয়েছে, এই সময় পড়ুয়াদের ক্লাসের রেজাল্ট দেওয়া ছাড়াও একাধিক কাজ ছিল তাদের। কিন্তু সব বাতিল করে ছাত্রদের কথা চিন্তা করেই আপাতত স্কুল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।  জানা গিয়েছে, শুক্রবার সকালে ওয়ার্কশপ করানো হয় স্কুলে। আগামীদিনে আরও কয়েকটি ওয়ার্কশপ করার কথা ছিল। কিন্তু সেই সমস্ত অনুষ্ঠান আপাতত বাতিল করে দেওয়া হয়েছে । 

বিশ্বের পাশাপাশি করোনার থাবা গ্রাস করেছে ভারতকেও। দেশে ইতিমধ্যে করোনায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭৫। সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে স্বাস্থ্য় মন্ত্রক।  কলকাতাতেও ইতিমধ্যে বাড়তি সতর্কতা জারি করা হয়েছে। খোদ করেনা মোকাবিলায় কী করতে হবে তা জানিয়েছেন মুখ্য়মন্ত্রী। যে কোনও পরিস্থিতির জন্যে তৈরি রাখা হয়েছে বেলেঘাটা আইডি এবং এসএসকেএম সহ একাধিক সরকারি হাসপাতালকে। 

গতকাল একই পথে হাঁটেন দিল্লির মুখ্য়মন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। দিল্লির স্কুল কলেজগুলিতে পরীক্ষা ছাড়া না আসার কতা বলেন তিনি। আগামী ৩১ মার্চ পর্যন্ত দিল্লির স্কুল কলেজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন দিল্লির মুখ্য়মন্ত্রী।  

ক্রমেই এদেশে ভয়ানক হচ্ছে পরিস্থিতি। বৃহস্পতিবার ফের একবার লাফিয়ে বাড়ল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। এখনও পর্যন্ত এদেশে ৭৫ জনের শরীরে কোভিড-১৯ ভাইরাস পাওয়া গিয়েছে বলে স্বাস্থ্যমন্ত্রক সূত্রে জানা যাচ্ছে। পরিস্থিতি মোকাবিলায় ১৫ এপ্রিল পর্যন্ত সমস্ত ভিসা বাতিল করে দিয়েছে ভারত সরকার। প্রয়োজন ছাড়া ভারতীয়দের বিদেশে যেতে নিষেধ করা হচ্ছে। আপাতত স্থগিত রাখা হয়েছে আইপিএল।