বিয়ের পর নতুন ফ্ল্যাটে সংসার পাততে চেয়েছিলেন এক দম্পতি। কিন্তু তা আর হল কোথায়!  সাপের উপদ্রবে ফ্ল্যাট ছেড়ে পালাতে হল তাঁদের। গচ্ছা গেল দশ লক্ষ টাকাও! প্রত্যন্ত কোনও গ্রাম নয়, এমনই ঘটনা ঘটেছে বেহালার অদূরে শিবরামপুরে।

দক্ষিণ কলকাতার চেতলার বাসিন্দা অমিত দাস। তাঁর স্ত্রী রিয়ার বাড়িও ওই এলাকাতেই। বিয়ের পর বেহালার অদূরে শিবরামপুরে নতুন একটি ফ্ল্যাট কেনেন অমিত। এলাকাটি কলকাতা পুরসভার ১২৭ নম্বর ওয়ার্ডে। তাঁদের ফ্ল্যাটের আশেপাশে সাপের উপদ্রবের কথা এলাকারই দু'চারজন শুনেছিলেন ওই দম্পতি। কিন্তু এমন কাণ্ড যে ঘটবে, তা ভাবতে পারেননি। রিয়া জানালেন, একদিন ফ্ল্যাটে রান্নাঘরে রান্না করছিলেন তিনি। গ্যাসের পাশে জলের জার সরাতেই দেখতে পান কালো মোটা হিলহিলে একটি সরীসৃপ! বাথরুমে স্নান করার অভিজ্ঞতা শোনালেন অমিত। ওই যুবকের কথায়, মগে করে জল তুলতে গিয়েছিলেন তিনি। দেখেন, বালতিতে শুয়ে রয়েছে পেল্লায় সাইজের একটি জলঢোঁড়া। এরপরই ওই ফ্ল্যাটে আর থাকার সাহস পাননি অমিত ও রিয়া। দু'জনে মিলে সিদ্ধান্ত নেন, যতই কষ্ট হোক , এখানে আর নয়। প্রয়োজনে ধার নিয়ে অন্য জায়গায় ফ্ল্যাট কিনবেন। 

আরও পড়ুন: কসবায় মহিলার উপর অ্যাসিড হামলা, গ্রেফতার ১

বেহালার রায় বাহাদুরে দশ লক্ষ টাকা দিয়ে ফ্ল্যাট কিনেছেন ওই দম্পতি। ছোট্ট ফুটফুটে একটি মেয়েও হয়েছে তাঁদের।  স্ত্রী ও মেয়েকে সেই ফ্ল্যাটেই এখন থাকেন অমিত। ছোট্ট এক কামরায় ফ্ল্যাটটি খুব বেশি বড় নয়। তিনজনে মিলে থাকতে অসুবিধা হয়। ওই দম্পতির সাফ কথা, 'মরে যাব, তবুও আর ওই ফ্ল্যাটে ফিরব না।'