বাংলায় আসতে চলেছে ঘূর্ণীঝড় 'যশ'। কোভিডে ভয়াবহ অবস্থা দেশ তথা পশ্চিমবঙ্গের। তার উপর সদ্য ঘূর্ণীঝড় তাউতে তাণ্ডবে তছনছ হয়ে গিয়েছে ভারতের পশ্চিম উপকূল। কেরালা, মহারাষ্ট্র, গুজরাটে ধ্বংসলীলা চালিয়েছে এই ভয়াবহ ঘূর্ণীঝড়। কোভিড পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিকভাবে কার্যত চাপের মুখে প্রাকৃতিক দুর্যোগ নিয়ে কেন্দ্র-রাজ্য উভয়ই। আর তারই মাঝে এবার আমফানের বিভীষিকাময় স্মৃতি নিয়ে আসছে প্রবল শক্তিশালী ঝড় 'যশ'।   

আরও পড়ুন, ঘূর্ণীঝড় থেকে বাঁচতে চেন দিয়ে বাঁধা হবে ট্রেন, 'যশ'-র মোকাবিলায় কন্ট্রোল রুম চালু পুরসভায় 

 

 


মৌসম ভবনের দেওয়া পূর্বভাস অনুযায়ী, পশ্চিমবঙ্গের উপকূলের দিকেই ধেয়ে আসছে ঘূর্ণীঝড় 'যশ'। ২৬ মে বিকেলে রাজ্যের উপকূলে সেই ঝড় আছড়ে পড়বে বলে জানা যাচ্ছে।  ঘূর্ণীঝড় 'যশ' এর শক্তিও হবে আমফানের মতোই। বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ তৈরি হচ্ছে বলে জানিয়েছে মৌসম ভবন। এই নিম্নচাপ ক্রমশ অতি তীব্র আকার ধারণ করে ঘূর্ণীঝড়ে পরিণত হবে বলে সতর্কবার্তা জারি করা হয়েছে।

আরও পড়ুন, ফের আদ্রতা চড়ে হাঁসফাঁস অবস্থা কলকাতায়, 'যশ'-র জেরে ২৬ মের পর বৃষ্টি বাড়ার আশঙ্কা 

 

 

মৌসম ভবন আরও জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরের উপর ২২ মে শনিবার একটি নিম্নচাপ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যা ক্রমশ শক্তি বৃদ্ধি করবে। রবিবার আরও শক্তি বেড়ে তা ঘূর্ণীঝড়ের আকার নিতে পারে এই নিম্নচাপ। সোমবার ঘূর্ণীঝড় 'যশ'-র আরও তীব্র হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে । ৭২ থেকে ১২০ ঘন্টা নিম্নচাপ স্থায়ী হবে বঙ্গোপসাগরে। আবহাওয়া দফতর থেকে সমুদ্র মাছ ধরতে যেতে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। 

আরও পড়ুন, ঘূর্ণিঝড় যশের মোকাবিলায় ছুটি বাতিল বিদ্যুত দফতরের কর্মীদের, প্রস্তুতি তুঙ্গে নবান্নে 

 

 


ঘূর্ণীঝড় যশের মোকাবিলাতে আগের প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের সময়ের মতোই এবারও কন্ট্রোল রুমে নিজে থাকবেন খোদ মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়। নবান্নের ভিতরেই এই কন্ট্রোল রুম তৈরি হবে। উল্লেখ্য, ফণী, আমফান অন্যান্য শক্তিশালী ঝড়ের সময়তেও রাজ্যবাসী পাশে থেকে সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। তাই এবারেও তার অন্যথা হবে না।   যে সময়ে ঘূর্ণীঝড় আছড়ে পড়বে বাংলার উপকূলবর্তী অঞ্চলে, ওই দিনগুলিতে কন্ট্রোলরুমে রাতভর নিজে থাকবেন মমতা।

আরও পড়ুন, 'ভূল সিদ্ধান্তে অন্য দলে গিয়েছিলাম- ক্ষমা করে দিন', দলে ফিরতে চেয়ে মমতাকে চিঠি সোনালির 

 

 


আবহাওয়া দফতর সূত্রে খবর, ২২ মে শনিবার দুপুর ২ টো থেকে ১- ২ ঘন্টার মধ্যে রাজ্যের বীরভূম এবং পূর্ব মেদিনীপুরের কিছু অংশে বজ্রবিদ্যুৎ সহ প্রবল বর্ষণ হবে। এবং সঙ্গে ৩০ থেকে ৪০ কিমি বেগে বয়ে যাবে ঝড়ো হাওয়া। পাশাপাশি হাওয়া অফিস আরও জানিয়েছে, ২ টো বেজে ১০ মিনিটের পর থেকে ১- ২ ঘন্টার মধ্যে রাজ্যের নদিয়া এবং উত্তর ২৪ পরগণার কিছু অংশে বজ্রবিদ্যুৎ সহ হালকা থেকে মাঝারি বর্ষণ হবে। এবং সঙ্গে এক্ষেত্রেও ৩০ থেকে ৪০ কিমি বেগে বয়ে যাবে ঝড়ো হাওয়া।