বরানগরে মা-বাবার দেহ আগলে রাখল মেয়ে। বরানগর পৌরসভার অন্তর্গত টিএন চ্যাটার্জি স্ট্রিট লালবাড়ি বহুতল আবাসন থেকে  এক চিকিৎসক দম্পতির পচা গলা মৃতদেহ উদ্ধার করল বরানগর থানা পুলিশ।  

 

আরও পড়ুন, কলকাতায় ফের কন্টেইনমেন্ট জোনের সংখ্যা বাড়ল, দেখুন একনজরে


চৌধুরী পরিবার ওই আবাসনের প্রায় ২০ বছরের সঙ্গী

 রবিবার রাতে  ঘটনাটি ঘটেছে বরানগর থানার অন্তর্গত ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের এক নম্বর টিএন চ্যাটার্জি স্ট্রিট লালবাড়ি বহুতল আবাসনের দোতালায়। মৃত একে চৌধুরী এবং তার স্ত্রী এস চৌধুরী, তারা দুজনেই পেশায়  চিকিৎসক ছিলেন। একে চৌধুরীর বয়স  ৮০ থেকে ৮৫ বছরের মধ্যে এবং স্ত্রীর বয়স ৮০ ছুঁইছুঁই। তাঁদের এক মেয়ের বিয়ে হয়ে যায়। কিন্তু  মেয়ের ডিভোর্স হয়ে যাওয়ার কারণে ,তাঁদের একমাত্র মেয়ে  এই আবাসনে একসঙ্গে থাকতেন। জানা গিয়েছে,  প্রায় কুড়ি বছর ধরে এই আবাসনে বসবাস করেছেন ওই চিকিৎসক দম্পতি। চলতি মাসের ২৩ তারিখে প্রথমে একে চৌধুরী  মারা যান। প্রাথমিক অনুমান, তারপরে স্ত্রী মারা যান। এখন সবটাই ময়নাতদন্তের উপরে নির্ভর করছে। রবিবার রাত্রি ৯ টা  নাগাদ বরানগর থানা পুলিশ ফ্লাটের থেকে ওই চিকিৎসক দম্পতির পচা গলা মৃতদেহ উদ্ধার করে।

আরও পড়ুন, শীতে গেলেই হয় 'গড়চুমুক', রইল কলকাতার কাছে সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার ঠিকানা


 মা-বাবার দেহ আগলে রাখল ১ সপ্তাহ ধরে মেয়ে

 আবাসনের মানুষের অনুমান, মৃত দম্পতির মেয়ে এবং নাতনি মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছে। নাতনি এবং তার মা তারা ২৩ তারিখ থেকে  সোমবার অবধি  মা-বাবার দেহ আগলে একই ঘরে বসবাস করেছে।  ফ্ল্য়াটের অন্য প্রতিবেশী, এমনকি আবাসনের কেউ বুঝতে পারেননি। পুলিশ এসে মৃতদেহ বের করলে আবাসনের লোকেরা জানতে পারে। বরানগর থানার পুলিশ মৃতদেহ দুটি ময়না তদন্তের জন্য সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়েছে। তদন্তে নেমেছে বরানগর থানার পুলিশ।