এবার করোনা নিয়ে মুখ্য়মন্ত্রীকে সরাসরি চ্যালেঞ্জ জানালেন বিজেপির রাজ্য় সভাপতি দিলীপ ঘোষ। মেদিনীপুরের সাংসদ বলেছেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি ও তাঁর দলের লোকজন পোস্ট  করবেই। ক্ষমতা থাকলে আটকে দেখাক মুখ্যমন্ত্রী। বুধবারই নবান্নে করোনা নিয়ে বিজেপিকে রাজনীতি না করার হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন মমতা। যার প্রেক্ষিতে এই কথা বলেছেন দিলীপবাবু।

রাজ্য়ে করোনা পজিটিভ ১০৫ জনের মৃত্যু, বৃহস্পতিবার জানালেন মুখ্যসচিব...

রাজ্য়ে করোনা নিয়ে একের পর এক ভিডিয়ো প্রকাশ পাওয়ায় অস্বস্তি বেড়েছে রাজ্য় সরকারের। বেশিরভাগ ভিডিয়োতেই ফুটে উঠেছে রাজ্য় সরকারের ব্যর্থতার খতিয়ান। বুধবার যা নিয়ে মুখ খুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।  নবান্নে তিনি বলেন, যতদিন করোনা পরিস্থিতি চলবে, ততদিন রাজনীতি করা ঠিক নয়। রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভিডিও আপলোড করা হচ্ছে। সেই ভিডিওগুলির সত্যতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

ডেথ সার্টিফিকেটে কোভিড না লেখার অর্ডার ফাঁস, বদলি মুর্শিদাবাদ হাসপাতালের সুপার...
 
যা শুনে মমতাকে পাল্টা দিয়েছেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করব। হিম্মত থাকলে মুখ্যমন্ত্রী আটকাবেন। এই বলেই অবশ্য থেমে থাকেননি বিজেপির রাজ্য় প্রধান। তাঁর দাবি, একদিকে মুখ্য়মন্ত্রী এই পরিস্থিতিতে সাহায্য়ের হাত বাড়িয়ে দিতে বলছেন, অন্য়দিকে ঘর থেকে বেরোলেই পুলিশ দিয়ে বিজেপি নেতাদের আটকাচ্ছেন। বুধবারই মুখ্যমন্ত্রী অভিযোগ করেন, বিজেপির নেতারা ঘরে থেকেই রাজ্য সরকারকে অপদস্থ করে চলেছেন। কেউ রাস্তায় বেরিয়ে মানুষের পাশে থাকছেন না বলেও অভিযোগ করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 

সোমবার থেকে রাজ্য়ে কোন কোন দোকান খোলা, বন্ধ থাকবে কোনগুলি...

এখানেই থেমে থাকেননি দিলীপ ঘোষের বাক্যবাণ। বিজেপির  রাজ্য় সভাপতি বলেন,টিকিয়াপাড়ায় পুলিশকে ল্যাজ গুটিয়ে দৌড়তে হয়েছে। কার সৌজন্য়ে এই পরিস্থিতি রাজ্য়বাসী তা জেনে গিয়েছে। একই ভাবে বাদুড়িয়ায় ন্যায্য় রেশনের দাবি তোলায় সাধারণ মানুষকে পিটিয়েছে পুলিশ। একই রাজ্য়ে পুলিশের দ্বৈত চরিত্র।