রাজ্য়পালের পর এবার বিজেপির রাজ্য় সভাপতি। পশ্চিমবঙ্গের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে মুখ্য়মন্ত্রীকে চিঠি পাঠালেন বিজেপির রাজ্য় সভাপতি দিলীপ ঘোষ। পাশাপাশি সাংবাদিক বৈঠক করে রাজ্য সরকারকে এদিন ফের খোঁচা দিলেন মেদিনীপুরের সাংসদ। 

কলকাতায় করোনা আক্রান্ত কেন্দ্রীয় দলের গাড়িচালক, সংস্পর্শে আসা ব্য়ক্তিদের পাঠানো হবে কোয়ারেন্টিনে...

এদিন দিলীপবাবু বলেন,  করোনা আক্রান্তদের রাজ্য সরকারের তরফে যে পরিসংখ্যান দেওয়া হচ্ছে সেটা সঠিক নয়। রাজ্যে লাফিয়ে লাফিয়ে আক্রান্ত সংখ্যা বাড়ছে। যেখানে করোনা আক্রান্ত ব্যক্তিদের পোড়ানো হচ্ছে,সেখানে এক অফিসার এবং কেন্দ্রীয় দলের সাথে আসা এক বিএসএফ অফিসার করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এটা চিন্তার বিষয়। রাজ্য়কে রেড জোন গ্রিন জোন নিয়ে খোঁচা দিতেও ছাড়েননি দিলীপবাবু। তিনি বলেন, বাংলা ওপরে সবুজ ভিতরে লাল হয়ে গিয়েছে।

রাজ্য়ে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১২৫৯,মৃত ৬১.

কেন্দ্রীয় সরকার যে রেশন পাঠাচ্ছে  তা লুঠ হয়ে যাচ্ছে এবং সঠিক হিসেব পাওয়া যাচ্ছে না। সাধারণ মানুষ বঞ্চিত হচ্ছেন। কেন্দ্র সরকারের পাঠানো বিভিন্ন প্রকল্পের আওতায় যে টাকা পাঠানো হয়েছে তার সঠিক হিসেব রাজ্য সরকার দিতে পারছেন না। দিলীপবাবু জানান, তিনি আশা করছেন মুখ্য়মন্ত্রীকে তিনি যে  চিঠি দিয়েছেন সেটা মেনে যদি রাজ্য সরকার চলে তাতে রাজ্যের মানুষের উপকার হবে। তবে টেস্ট-এর সংখ্যা আরও বাড়াতে হবে।

রাজ্যে করোনায় মৃত্যুর হারে দেশের শীর্ষে পশ্চিমবঙ্গ, বলছে কেন্দ্রের টিম. 

এখানেই থেমে থাকেননি বিজেপির  রাজ্য় সভাপতি। দেশজুড়ে যে মদের দোকান খোলা হয়েছে তা নিয়ে তিনি বলেন, যে মোটা টাকা রাজ্য সরকারের আয় হয় এই মদ থেকে। কিন্তু যেভাবে মানুষ পুলিশকে উপেক্ষা করে বেরিয়ে পড়ছেন মদ কিনতে, তা চিন্তার বিষয়। পুরো বিষয়টি পুলিশের নজর বাড়াতে হবে।