'গুন্ডা' মন্তব্যের জেরে অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আইন পদক্ষেপ নিলেন দিলীপ ঘোষ। ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়কে মন্তব্য প্রত্যাহার এবং নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার নির্দেশ দিয়ে রাজ্য়-বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের আইনজীবি নোটিশ পাঠিয়েছেন ।

আরও পড়ুন, 'প্য়াক-আপ', ২১-এর আগে মুখ খুললেন মদন মিত্র

 

 'সবে তো শুরু করেছি, অনেক দেখতে হবে এখনও'

 প্রসঙ্গত, শনিবার  ডায়মন্ড হারবারের সভা থেকে   অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বারবার করে বলেছেন, ' নাম করে বলছি' বলে দিলীপ ঘোষের নামে 'গুন্ডা' মন্তব্য করেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।  এই প্রসঙ্গে সোমবার প্রাতঃভ্রমণে বেরিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন, 'কে গুন্ডা সে তো পঞ্চায়েত ইলেকশনে আমরা দেখেছি। আমাকে গুন্ডা কেন মাফিয়াও বলেছেন। উনি সাত কোটি টাকার বাড়িতে থাকেন। আর আমি লোকের বাড়িতে থাকি। তাই কে মাফিয়া বোঝা যাচ্ছে। ওনার কনভয়ে ২৫ টা গাড়ি থাকে। আর কি কি থাকে সবাই জানে। কে মাফিয়া বোঝা যাচ্ছে। সেই জন্য হতাশা চরম পর্যায়ে চলে গিয়েছে। তাই রাস্তায় গিয়ে চিৎকার করতে হচ্ছে। এতো চিৎকার চেঁচামেচি করে মানুষকে বোঝানো যাবে না। লোক সব জানে। লোক দশ বছর ধরে দেখছে কে কি করেছে। প্রাইভেট প্রোপাইটি করা হয়েছে। পুরো কালীঘাটকে ফাঁকা করে দেওয়া হয়েছে। লোকজনকে ওখান থেকে উজাড় করে দেওয়া হয়েছে। লোকের জমি-জমা বাড়ি দখল করে নেওয়া হয়েছে। আর আমি হয়ে গেলাম মস্তান, মাফিয়া, আমি গুন্ডা। গুন্ডামোর দেখেছো কি। যদি এতে গুন্ডামো মনে হয় তাহলে আমি সাধারণ মানুষের জন্য গুন্ডামো করছি। সাধারণ মানুষের উপর যে অত্যাচার হয়, তার বিরুদ্ধে গুন্ডাম করছি। সবে তো শুরু করেছি। অনেক দেখতে হবে এখনও।'

আরও পড়ুন, শীতে গেলেই হয় 'গড়চুমুক', রইল কলকাতার কাছে সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার ঠিকানা

 

 কী ধরনের ভাষা প্রয়োগ করা উচিত প্রকাশ্যে,চিন্তা ভাবনা করা উচিত

অপরদিকে, 'গুন্ডা' মন্তব্য প্রসঙ্গে  দিলীপ ঘোষ বলেন, ' আমাদের উকিল ব্যাপারটা দেখছেন।  সমাজে মানুষের  যে কী ধরনের ভাষা প্রয়োগ করা উচিত প্রকাশ্যে, তা নিয়ে চিন্তা ভাবনা করা উচিত,। কেউ যদি মনে করে জিতে গিয়ে মালিক হয়ে গিয়েছে , তাহলে মানুষ তুলতেও পারে ফেলতেও পারে' বলে জানান তিনি। এরপর বেলা গড়াতেই দিলীপ ঘোষের আইনজীবি নোটিশ পাঠিয়েছেন অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্যায়কে।

 

আরও পড়ুন, বেড়িয়ে পড়ুন বড়ন্তি, কলকাতার কাছেই সেরা ৫ ঘুরতে যাওয়ার জায়গার রইল হদিশ