করোনা আতঙ্কে মাঝপথেই পোস্তার বৃদ্ধকে ফেলে পালাল অ্যাম্বুল্যান্স। এদিকে অন্য অ্যাম্বুল্যান্স খুঁজে বৃদ্ধকে হাসপাতালে পাঠাতে হিমশিম খেতে হল পুলিশকেও। অবশেষে তারা নিজেদের গাড়িতে বৃদ্ধকে হাসপাতালে পাঠাল। পুলিশের দাবি, অভিযুক্ত চালকের খোঁজ শুরু হয়েছে।

 

আরও পড়ুন, ফের তথ্য গোপন করোনা আক্রান্ত প্রৌঢ়ের ভাইয়ের, আইসোলেশনে ভর্তি বরানগরের বাসিন্দা


উত্তর কলকাতার রাজেন্দ্র মল্লিক স্ট্রিটে থাকেন বছর পঁয়ষট্টির ওই বৃদ্ধ। তাঁর এক ছেলে রাজ্যের বাইরে থাকেন। জানা গিয়েছে, গত কয়েক দিন ধরে ওই বৃদ্ধ জ্বর আক্রান্ত ছিল। এদিকে কাশিও হচ্ছিল খুব।  পরিস্থিতিতে পরিবার, ওই বৃদ্ধকে হাসপাতালে দেখানোর সিদ্ধান্ত নেয়। সেই মতো রবিবার সকালে অ্যাম্বুল্যান্স ভাড়া করে বেরিয়ে পড়েন তাঁরা। বৃদ্ধকে নিয়ে অ্যাম্বুল্যান্স প্রথমে কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে যায়। সেখান থেকে তাঁকে আইডি হাসপাতালে যেতে বলা হয়। এর পরেই অ্যাম্বুল্যান্স-চালক বৃদ্ধকে রবীন্দ্র সরণির একটি বেসরকারি হাসপাতালের সামনে নামিয়ে দিয়ে সটান চলে যান। পোস্তা থানা এলাকার রবীন্দ্র সরণির এই ঘটনায় প্রাথমিক চিকিৎসার পরে ওই বৃদ্ধকে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর।  মেডিসিনের চিকিৎসক অরুণাংশু তালুকদার বলছেন, 'জ্বর মানেই করোনা নয়। এই সময়ে আবহাওয়া বদলের জন্য এমনিই জ্বর-কাশি হতে পারে। জন-সচেতনতার জন্য জ্বর-কাশিকে লক্ষণ হিসেবে বলা হচ্ছে।'

আরও পড়ুন, একই দিনে রাজ্য়ে আক্রান্ত তিন, করোনা সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে ২১


অপরদিকে এই ঘটনার পর  কাউন্সিলরই খবর দেন থানায়। ওসি সহ পুলিশকর্মীরা গিয়েও আরেকটি অ্যাম্বুল্যান্স খুঁজতে গিয়ে হিমশিম খেয়ে যান। অবশেষে পুলিশের গাড়িতে বৃদ্ধকে হাসপাতালে পাঠানো হয়। পুলিশের দাবি, অভিযুক্ত চালকের খোঁজ শুরু হয়েছে। যে নম্বরে ফোন করে অ্যাম্বুল্যান্সটি ডেকেছিলেন বৃদ্ধের ছেলে, সেই নম্বরে পরে যোগাযোগ করা যায়নি। ঘটনা প্রসঙ্গে পোস্তা থানার ওসি জানিয়েছেন,'কারও সামান্য জ্বর-কাশি হলেই যদি ধরে নেওয়া হয় তিনি করোনা আক্রান্ত, তা হলে সেই প্রবণতা মারাত্মক।' 

আরও পড়ুন, রাজ্য়ে ২০ ছুঁল করোনা আক্রান্তের সংখ্য়া, এবার আক্রান্ত প্রবীণ নাগরিক