সোমবার মহাদশমী শহরজুড়ে প্রায় ১৮০০ প্রতিমার বিসর্জন। বিসর্জনের জন্য বেশ অনেকগুলি রাস্তা নির্দিষ্ট করা হয়েছে। জেনে নেওয়া যাক সেই রুটগুলি। উল্লেখ্য, প্রতিবছর রেড রোড থেকে শোভাযাত্রা করে বাছাই করে কয়েকটি বারোয়ারি পুজোর প্রতিমা ভাসানের জন্য় নিয়ে যাওয়া হয় গঙ্গার ঘাটে। কিন্তু করোনার জন্য পুজো কার্নিভাল বাতিল করে দিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। তাই ভাসানের আগে ঠাকুর দেখা বা ভাসান দেখার কোনও সুযোগ থাকল না সাধারণ দর্শনার্থীদের।

 

 

আরও পড়ুন, মহানগর জুড়ে মনখারাপ, কবে আসবে আবার মা দুর্গা

 

নিষিদ্ধ শোভাযাত্রা


রাসবিহারী অ্য়াভিনিউ হয়ে কালীঘাট-টালিগঞ্জ। হাজরা হয়ে হরিশ মুখার্জী রোড হয়ে বলরাম বসু ঘাট রোড। রেড রোড হয়ে রাণী রাসমণি অ্য়াভিনিউ-কিংস ওয়ে দিয়ে স্ট্র্য়ান্ড রোড। ওদিকে যতীন্দ্রমোগন অ্য়াভিনিউ-মদনমোহন স্ট্রিট-রবীন্দ্র সরণি। যতীন্দ্রমোহন অ্যাভিনিউ হয়ে বিকে পাল অ্যাভিনিউ হয়ে নিমতলা ঘাট। মহর্ষি দেবেন্দ্র নাথ রোড হয়ে আহিরীতলা স্ট্রীট হয়ে স্ট্র্য়ান্ড ব্য়াঙ্ক রোড। চিত্তরঞ্জন অ্য়াভিনিউ হয়ে যতীন্দ্রমোহন অ্যাভিনিউ হয়ে বিডন স্ট্রীট হয়ে নিমতলা ঘাট স্ট্রীট হয়ে স্ট্র্যান্ড ব্য়াঙ্ক রোড। প্রসঙ্গত অন্যবছরের থেকে এবছরের পুজো করোনা আবহে পুরোপুরিই আলাদা। তাই এবার নিষিদ্ধ শোভাযাত্রা।

আরও পড়ুন, পুজোর আনন্দের আড়ালে করোনায় আরও মৃত্যু, একদিনে ফের রেকর্ড সংক্রমণ কলকাতায়

 

 

স্ক্রিনেও দেখা যাবে প্রতিমা নিরঞ্জন

 কলকাতা পুরসভার প্রশাসনিক বোর্ডের সদস্য তথা বিদায়ী মেয়র-ইন-কাউন্সিল দেবাশিস কুমার জানিয়েছেন, পরিদর্শনের পর প্রাথমিকভাবে ছোট-বড় মিলিয়ে ১৫টি ঘাট-কে বিসর্জনের জন্য় চিহ্নিত করা হয়েছে। প্রতিবারের মতো এবার ঘাটগুলি পর্যাপ্ত আলো ও ফুল-বেলপাতা-সহ অন্য সামগ্রী ফেলার আলাদা জায়গা থাকবে।  প্রতিমা বিসর্জনের পর কাঠামো তুলে পাঠিয়ে দেওয়া হবে ধাপায়। কলকাতার বন্দরের ডিসি সৈয়দ ওয়াকার জানিয়েছেন, বিসর্জনের সময়ে প্রতিটি ঘাটে থাকবে ডিজাস্টার ম্যানেজমেন্ট টিমের সদস্যরা। জলপথে, স্থলপথে, এমনকী সিসিটিভির মাধ্যমে চলবে নজরদারি। শুধু তাই নয়, বাজে কদমতলা, নিমতলার ঘাটে জায়ান্ট স্ক্রিনেও দেখা যাবে প্রতিমা নিরঞ্জন।