রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের অবস্থা সঙ্কটজনক হলেও আগের থেকে স্থিতিশীল। তাঁকে এখনও ভেন্টিলেশেনেই রাখা হয়েছে। তবে তাঁকে ঘুমের ওষুধ দিয়ে ঘুম পাড়িয়ে রাখা হচ্ছে না। ডাকলে চোখ খোলার চেষ্টাও করছেন। বৃহস্পতিবার রাতে তার শারীরিক অবস্থার বিরাট কিছু পরিবর্তন দেখা যায়নি। উল্লেখ্যযোগ্য কোনও  অস্বাভাবিকতা দেখা যায়নি, বলেই জানিয়েছেন উডল্যান্ডের চিকিৎসকেরা।


 সঙ্কটজনক হলেও আগের থেকে স্থিতিশীল 

 পশ্চিমবঙ্গের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য, ৮ ডিসেম্বর আলিপুরের উডল্যান্ড হাসপাতালে ভর্তি হন। এই মুহূর্তে তাঁর চিকিৎসায় গড়া হয়েছে ১১ সদস্য়ের মেডিক্য়াল টিম। শুক্রবার সকালের মেডিক্য়াল বুলেটিন বলছে, তাঁর রক্তচাপ ১৩০ বাই ৬০ । পালস রেট প্রতি মিনিটে ৭৬। আগের থেকে অক্সিজেনের মাত্রারও কিছুটা উন্নতি হয়েছে। কার্বন ডাই অক্সইডের পরিমাণও উল্লেখযোগ্যভাবে কমেছে। বুধবার হাসপাতালে ভর্তির সময় বুদ্ধদেবের অক্সিজেন স্যাচুরেশন ছিল ৭০ শাতংশের কাছাকাছি। বৃহস্পতিবার সেই মাত্রা ৯২ থেকে ৯৫ এর মধ্যে রয়েছে। ১০০ শতাংশের কাছে থাকলে এই মাত্রা স্বাভাবিক। 


কীভাবে খাওয়ানো হচ্ছে  প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে

অপরদিকে, এইমুহূর্তে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রীকে খাওয়ানো হচ্ছে রাইলস টিউব দিয়ে। তাঁকে বিভিন্ন ধরণের ইন্টার ভেনাস ফ্লুইড দেওয়া হচ্ছে। যার মধ্য়ে রয়েছে অ্য়ান্টিবায়োটিক এবং স্টেরয়েডও।পর্যাপ্ত পুষ্টি এবং অন্যান্য সহায়তার যত্ন নেওয়া হচ্ছে। যেহেতু তিনি এখনও ভেন্টিলেশনে রয়েছেন তাই চিকিৎসকেরা তাঁর স্বাস্থ্য-পরিস্থিতির উপর নিয়মিত নজরদারি রাখছেন। প্রয়োজনে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করছেন, সংবাদমাধ্যমকে এমনটাই জানিয়েছে উডল্যান্ড কর্তৃপক্ষ। উল্লেখ্য, এই দীর্ঘদিন ধরে অসুস্থ থাকার সময় প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বুদ্ধদেব ভট্টাচার্যের শারীরিক অবস্থার খবর নিয়ে গিয়েছেন রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়। এবং ভর্তি হবার পর সশরীরে গিয়ে দেখেও এসেছেন মুখ্যমন্ত্রী।