তখন গভীর রাত। ছুটির আমেজে গভীর নিদ্রায় সারা শহর। আর রবিবারের আলো ফোটার আগেই ঘটে গেল ফের এক দুর্ঘটনা। চব্বিশ ঘন্টা না পেরোতেই ফের অগ্নিকাণ্ড কলকাতায়। বউবাজারের গনেশ চন্দ্র এভিনিউ-এর পর এবার চিত্তরঞ্জন এভিনিউ। আগুন ছড়াল এবার এলআইসি বিল্ডিং-এ। অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ৩ জনকে উদ্ধার করা হলেও তাঁদের মধ্যে ২ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। 

 

 

আরও পড়ুন, দুর্গা পুজোয় উপহার রাজ্যের প্রযুক্তিবিদদের, কী ঘোষণা করলেন মমতা

 

কালো ধোয়া দেখতেই শুরু হয় চিৎকার

সূত্রের খবর, রাত ৩ নাগাত আগুন লাগে চিত্তরঞ্জন এভিনিউের এলআইসি বিল্ডিং-এ।  প্রসঙ্গত, সেই সময় বহুতলের ৪ তলায় বেশ কিছু কর্মী ছিলেন বলে দাবি প্রত্যক্ষদর্শীদের। আগুন ও কালো ধোয়া দেখতেই শুরু হয় চিৎকার। ১০০ ডায়াল করেন স্থানীয়রাই। খবর পেয়েই ছুটে আসে পুলিশ এ দমকল বাহিনী। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় চলে উদ্ধারকাজ। তারপর সেখান থেকে অগ্নিদগ্ধ অবস্থায় ৩ জনকে উদ্ধার করা হয়েছে। কিন্তু তাঁদের মধ্যে ২ জন এই মুহূর্তে এসএসকেম-এ মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছে।

 

আরও পড়ুন, অক্সিজেন সাপোর্ট ছাড়াই রাতে ভাল ঘুম সৌমিত্র-র, আচ্ছন্ন ভাব কাটলেই মিলতে পারে ছুটি

 

 

৬ তলা থেকে লাফ দেয় বছর চোদ্দোর এক কিশোর

 অপরদিকে, দমকলের ৫ টি ইঞ্জিন বহু চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রনে আনে শেষ অবধি। ততক্ষণে রবিবারের আলো ফোটার পথে। তবে কীভাবে এলআইসি বিল্ডিং-এ আগুন লাগল এবং অগ্নি নির্বাপক যন্ত্র ছিল কিনা এবিষয়ে উত্তর মেলেনি। উল্লেখ্য, এদিকে শুক্রবার রাতেই আগুন লাগে বউবাজারের গনেশ চন্দ্র এভিনিউ-এর বহুতলে। আগুন-আতঙ্কে ৬ তলা থেকে লাফ দেয় বছর চোদ্দোর এক কিশোর। কিন্তু হাসপাতালে গেলে শেষ অবধি তার মৃত্যু হয়। আর তারপরেই ফের অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা আতঙ্কিত শহরবাসী।