বিধানসভা ভোটের আগে আবারও নাড়া দিল সিন্ডিকেট-কাটমানি ইস্যু। এই নিয়ে বিজেপিকে তীব্র কটাক্ষ করলেন পুর ও নগরোন্নয়মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কাটমানি-সিন্ডিকেটের মতো অব্যবস্থার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়িয়েছিলেন বলে দাবি করলেন ফিরহাদ। একইসঙ্গে বাংলায় বিজেপি হিংসার বাতাবরণ তৈরি করেছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

আরও পড়ুন-'শুভেন্দু, সৌগত-সহ পাঁচ সাংসদ আসবেন বিজেপিতে', বোমা ফাটালেন অর্জুন সিং

সিন্ডিকেট-কাটমানি বাংলায় হয় না বলে দাবি করেন ফিরহাদ। তিনি বলেন, '''কাটমানি প্রসঙ্গ সবার প্রথম তুলে ধরেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এই অব্যবস্থার বিরুদ্ধে তিনিই প্রথম রুখে দাঁড়ান। পরবর্তী সময়ে বিজেপি এটাকে রাজনৈতিক ইস্যু দাঁড় করিয়েছে। এই রাজ্যে এখন কোথাও কোনও সিন্ডিকেট হয় না''। পাশাপাশি, ২০১১ সালের পর বাংলায় রাজনৈতিক মৃত্য নেই বলেও দাবি করেন ফিরহাদ।

আরও পড়ুন-কত টাকা মাইনে নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়, বিধানসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে জানুন সেকথা

অন্যদিকে, বিজেপি হিংসার রাজনীতি করে বলেও অভিযোগ করেন ফিরহাদ। তাঁর কটাক্ষ, ''বিজেপি সবসময় মরার রাজনীতি করে। আসলে তাঁরা অবসাদে ভোগে, মৃত্যুর মুখে চলে যায়। তাঁদের ১২৫ জন বিজেপি কর্মী মারা গিয়েছেন বলে দাবি করেছে বিজেপি, অমিত শাহকে আমার চ্যালেঞ্জ লিস্ট ধরে দেখিয়ে দিক সেই মৃত বিজেপি কর্মীদের নাম, কোথায় কীভাবে মারা গেছেন''।  একইসঙ্গে, সিএএ নিয়েও বিজেপিকে কটাক্ষ করেন ফিরহাদ। ''মতুয়া সংগঠনের শান্তনু ঠাকুর কীভাবে সাংসদ হলেন? তাহলে কী তিনি বাইরে থেকে এখানে এসেছেন? যদি বাইরে থেকে আসেন তা হলে কী করে সাংসদ হতে পারেন?  আসলে বিজেপি জোর করে মানুষের উপর প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করছে''।