নববর্ষ মানেই বাঙালির কাছে  হালখাতা, মন্দিরে পুজো দিয়ে বছর শুরুর দিন। প্রতি বছর নববর্ষের আগের রাতে কালীঘাট মন্দিরে গিয়ে পুজো দেন রাজ্য়ের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এবার করোনার কোপে, লকডাউনের জেরে এবার তা বাদ পড়ল। নবান্নে   এনিয়ে রীতিমত আক্ষেপ করলেন মুখ্যমন্ত্রী।

 আরও পড়ুন, এমআর বাঙ্গুরের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৫ রোগীর মৃত্যু, কারণ জানতে অপেক্ষা নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টের


রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে নতুন বছরটা শুরু হয় কালীঘাটে মায়ের কাছে পুজো দিয়ে। নববর্ষের আগের রাতেই পুজো সেরে ফেলেন তিনি। কিন্তু এই প্রথম কালীঘাটে পুজো দিতে যাবেন না তিনিও। শনিবার রুটিন বৈঠকের পর সেই আক্ষেপই প্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অপরদিকে নববর্ষ মানেই একাধিক উৎসবের সময়। একাধিক ধর্মীয় রীতি পালন হয়। গাজনের মেলা হয়, সবেবরাত হয়। তবে এবার তার কোনও আর উপায় নেই।

আরও পড়ুন, পার্ক সার্কাসের বেসরকারি হাসপাতালে প্রৌঢ়ের মৃত্য়ু, করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই অভিযোগ তুলল পরিবার

এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেছেন, 'প্রতি বছর মা কালীর কাছে যাই। এবার আর তা হবে না। আমি মা কালীর কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি। সব ঠিক হয়ে গেলে মা কালীর কাছে যাব।' এর পরই রাজ্যবাসীর কাছে তাঁর আবেদন, 'সবাইকে বাড়িতে থাকতে বলছি। আর নিজে কী করে যাই। তাই সবাইকে বলছি, এবার সকলে বাড়ি বসেই নববর্ষ পালন করুন। বাড়িতে বসেই মনে মনে প্রার্থনা করুন।' মুখ্যমন্ত্রী আরও বলেছেন, 'এবার যা পরিস্থিতি, তাতে আর কিছু করার নেই। মন্দির, মসজিদ, গুরুদ্বার রয়েছে। তাদের সবার কাছে আবেদন যাদের যা করার সব বাড়িতে বসে করুন। এখন একটা রোগের আগুন লেগেছে। এটা একটা দুঃস্বপ্নের আগুন।'এই কঠিন পরিস্থিতিতে রাজ্যবাসীর মনোবল ভেঙে না দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী নববর্ষের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন রাজ্যবাসীকে। 

 

 

এনআরএস-র আরও ৪৩ জন স্বাস্থ্য কর্মীর রিপোর্ট নেগেটিভ, স্বস্তিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

করোনার রোগী সন্দেহে বৃদ্ধকে বেধড়ক মার, স্যালাইনের চ্যানেল করা হাতে দড়ি পড়ালো মানিকতলাবাসী

করোনায় আক্রান্ত এবার কলকাতার ২ ফুটপাথবাসী, হোম কোয়ারেন্টাইনে উদ্ধারকারীরা