লক্ষ্য একুশ। নয়া কৌশলে বিজেপিকে ধরাশায়ী করতে তৎপর তৃণমূল। দায়িত্ব হাতে নিয়েই দলকে শক্তিশালী করার প্রয়াসে বিজেপির নিউক্লিয়াসে হানা দিয়েছিলেন নেত্রী। পাশাপাশি তৃণমূলের উত্তরসুরীদের খুঁজতে ঘোষণা করা হয়েছিল ‘ইউথ ইন পলিটিক্স’ কর্মসূচির নাম।তৃণমূলকে জয়ের সরণিতে ফেরাতে রণনীতি ঠিক করে ফেলেন প্রচার কৌশলী প্রশান্ত কিশোর। তাঁর ঘোষিত ইউথ ইন পলিটিক্স ব্যাপকভাবে সাড়া ফেলে গোটা রাজ্যে। 

প্রায় চার লাখের বেশি যুবক (১৮-৩৫ বছর বয়স্ক) রাজনীতিতে যোগদানের ইচ্ছাপ্রকাশ করেন । আজ সেই মাহেন্দ্রক্ষণ, যেদিন সেই যুবকরা তৃণমূলে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দেবেন।গত এক মাস ধরেই তৃণমূলে যোগদান কর্মসূচি চলছে। দলনেত্রী বিজেপিতে ভাঙন ধরানোর মন্ত্র আরোপ করেন তৃণমূলের রন্ধ্রে রন্ধ্রে। বিজেপি শিবিরে ভাঙন তো বটেই, যাঁরা একসময়ে তৃণমূল ছেড়ে বেরিয়ে গিয়েছিলেন, আকস্মিকভাবে তাঁরাও ফিরছেন অত্যন্ত উদ্গ্রীব হয়েই।এছাড়াও সমাজের স্বচ্ছ ভাবমূর্তি বহু ব্যক্তিত্বও যোগ দিচ্ছেন তৃণমূলে । এবার যোগ দেওয়ার পালা যুব সমাজের।
       
আসন্ন নির্বাচনের আগে পার্টির সংগঠনও বেশ মজবুত করতে হবে। আর বিজেপিকে প্রবল চাপের মধ্যে ফেলে দিতে হবে । গোটা টিমকে বারবার বুঝিয়েছেন পিকে। বিজেপির সংগঠনকে চুরমার করতে ময়দানে নেমে টিমকে কাজ করার বার্তা দিয়েছেন দলনেত্রী। গত কয়েক মাসে সেই কাজটাই চুপিসারে করে ফেলেছে টিম।