আলোকর উৎসব দীপাবলিতে সম্পর্কের দূরত্ব যেন কিছুটা হলেও কাটল। মুখযমন্ত্রীর বাড়ির কালীপুজোয় স্ত্রী সুদেশ  ধনকড়কে নিয়ে হাজির হলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়।

রাজ্যপাল হয়ে এরাজ্যে আসার পর থেকেই রাজ্যের সঙ্গে বারবার সংঘাতে জড়াতে দেখা গেছে রাজ্যপালকে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধে একাধিকবার মুখ খুলেছেন ধনকড়। এমনকী সম্প্রতি রাজ্যপালের নিরাপত্তরা দায়িত্ব রাজ্যের হাত থেকে সিআরপিএফের হাতে দেওয়া হয়েছে। 

তবে দীপাবলির আলোতে যেন সেই সম্পর্কের অন্ধকার কিছুটা হলেও কাটল। রাজ্যে সাংবিধানিক সংকট তৈরি হয়েছে বলে সম্প্রতি অভিযোগ করেছিলেন ধনকড়। তারপর নিজেই মমতা প্রশাসনের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করতে মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে ভাইফোঁটায় যাওয়ার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন রাজ্যপাল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাঠিয়েছিলেন চিঠিও। উত্তরবঙ্গ সফর থেকে ফিরে সেই চিঠির উত্তর দেন মুখ্যমন্ত্রীও। নিজের বাড়িতে সস্ত্রীক রাজ্যপালকে কালীপুজোয় আমন্ত্রণ জানান মমতা। সেইমত কালীপুজোর সন্ধ্যায় হাজির হন রাজ্যপাল। মুখ্যমন্ত্রীই তাঁদের অর্ভ্যত্থনা করে বাড়ির ভিতরে নিয়ে যান। 

প্রতিমার সামেন রাজ্যপাল জগদীর ধনখড় ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাশাপাশি বসতে দেখা যায়। মুখ্যমন্ত্রীর অন্য পাশে ছিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় ও বিধানসভার স্পিকার বিমান বন্দ্যোপাধ্যায়। মমতার বাড়িতে রাজ্যের কয়েকজন মন্ত্রীর সঙ্গেও আলাপ সারেন ধনকড়। মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি থেকে বেরিয়ে রাতে সস্ত্রীক দক্ষিণেশ্বরে মা ভবতারিনীর দর্শনেও যান রাজ্যপাল।