রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে সুর চড়াচ্ছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। লকডাউন কার্যকর করার প্রশ্নে এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ করলেন তিনি। রাজ্যপালের টুইট, 'কোভিড চ্যালেঞ্জ মোকাবিলার জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে কথা কম ও কাজ বেশি করার পরামর্শ দিচ্ছি। লকডাউন ভঙ্গকারী ও ব্যর্থ বা অকমর্ণ্য আধিকারিকদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করুন।'

করোনার আবহে তবে কি রাজ্য ও রাজ্যপালের সম্পর্কের সমীকরণও বদলে গেল? জল্পনা উসকে দিয়েছিলেন খোদ রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ই। পরিস্থিতি মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশংসা করে টুইট করেছিলেন তিনি। এরপর কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক থেকে কড়া চিঠি আসে নবান্নে। চিঠিতে জানানো হয়েছে, রাজাবাজার, তপসিয়া, মেটিয়াবুরুজ-সহ খাস কলকাতারই বিভিন্ন জায়গায় লকডাউন মানা হচ্ছে না। এমনকী, বিনামূল্যে রেশন বিলির ক্ষেত্রেও রাজনৈতিক হস্তক্ষেপের অভিযোগ তোলা হয়। রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। ভিডিও বার্তায় সংক্রমণ ঠেকাতে রাজ্যবাসীকে সরকারি নির্দেশিকা মেনে চলার আহ্বান জানান তিনি। 
 
বুধবার টুইট করে একশো শতাংশ সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার ক্ষেত্রে পুলিশ-প্রশাসনের বিরুদ্ধে ব্যর্থতার অভিযোগ করেছিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ও। শুধু তাই নয়, রাজ্যে আধা-সেনা নামানোর পক্ষেও সওয়াল করেন তিনি।  
 

নবান্নে নাম না করে রাজ্যপালকে পাল্টা দেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। বলেন, 'অনেকে প্যারা মিলিটারি ফোর্সের কথা বলছেন। এভাবে বললেই হল? প্যারা মিলিটারি ফোর্স কী করবে? আর্মির ডাক্তারদেরও তো করোনা হচ্ছে।'  বৃহস্পতিবার টুইট করে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাল্টা দিলেন জগদীপ ধনখড়ও।