করোনাভাইরাস সংক্রমণ, লকডাউন আর কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে নবান্ন আর রাজভবনের সংঘাত ক্রমশই সুর চড়াচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রী পাঁচ পাতার একটি চিঠি লিখে রাজ্যপালকে বলেন তিনি এই রাজ্যের নির্বাচিত মুখ্যমন্ত্রী। তারই উত্তরে রাজ্যপালও সোশ্যাল মিডিয়ায় রীতিমত চড়াসুরেই বার্তা দেন। রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়ের কথায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের চিঠি আক্রমণাত্মক। পাশাপাশি তিনি বলেন নবান্ন থেকে পাওয়া চিঠি সংবিধানিকভাবে অনেকাই দুর্বল। তথ্যগতভাবে ভুলও বলেও তিনি মন্তব্য করেন। তিনি এর উত্তর দেবেন বলেও জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি বলেন এই রাজ্যের মানুষ জানতে চায় আসল সত্যিটা কী। 

রাজ্যপালের অভিযোগ পশ্চিমবঙ্গে নমুনা পরীক্ষা কম হচ্ছে আর করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মৃত্যুর কারণ সম্পর্কিত তথ্যেও তুলে রয়েছে।  রাজ্যের করোনা পরিস্থিতি নিয়ে তিনি উদ্বেগ প্রকাশ করেন। পাশাপাশি রাজ্যপাল বলেন অনাবাসী  বাঙালি চিকিৎসকরাই এই পরিস্থিতির সমাধান করতে পারে। 

শুধু করোনাভাইরাসের সংক্রমণ নয়। এই রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানের দায়িত্ব নিয়ে আসার পর থেকেই একাধিকবার তিনি সংঘাতে জড়িয়েছেন রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে। করোনাভাইরাস সংক্রমণ রোখা ও লকডাউন কার্যকর করা নিয়েও তার ব্যতিক্রম হল না বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।