একেই বলে মরার ওপর খাড়ার ঘা। একে ২০২০ বছর জুরে নেই সঠিক মাত্রায় পারিশ্রমিক। হাজার হাজার মানুষের চাকরি গিয়েছে চলে। তারই মাঝে এবার নয়া বিপাকে পড়ল কলকাতা বিমান বন্দরের গ্রাউন্ট স্টাফেরা। বর্তমানে যে সংস্থার অন্তর্ভুক্ত রয়েছেন তাঁরা, সেই সংস্থার সঙ্গে চুক্তির মেয়াদ শেষ হচ্ছে এই বছরই। পরবর্তীতে আসছে এয়ার ইন্ডিয়ার সহযোগী সংস্থা। 

আরও পড়ুন- জীবনের জটিল সমস্যা ও একের পর এক বাধা, জ্যোতিষ মতে নিয়ম মেনে পান প্রতিকার

বর্তমানে সংস্থা ভদ্রর অভিনে ছিল মোট ৩৮০ জন স্টাফ। তাঁরাই গোটা বিমান বন্দরের গ্রাউন্ড লেভেলের কাজ করে থাকতেন। তবে নতুন সংস্থা এই সংখ্যক কর্মী নিতে নারাজ। তাঁদের বক্তব্য বর্তমানে কাজের চাপ কম। তাই ২০০ জনকে নেওয়া হবে এখন। এরপর চাপ বাড়লে আসবে আরও একশো জনের নাম। বাকি আশিদের কথা পরবর্তীতে ভেবে দেখা হবে। 

 

এতেই আপত্তি জানায় কর্মীরা। তাঁদের বক্তব্য এখনই সকলকে নিতে হবে কাজে। পাঁচটি শহর থেকে বিমান চলাচল বন্ধ। তা চালু হলে কর্মী প্রয়োজন। আর প্রথম সারিতে থাকা যে ২০০ জনকে নিতে চায় সংস্থা তাঁদের কাগজপত্র জমা দেওয়ার নির্দেশও এসেছে। কিন্তু কর্মীরা এক যোগে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, যে সকলকে কাজে না নিলে কোনও দরখাস্তই জমা পড়বে না। যার ফলে অনুমান করাই যায় এই দাবি না মেনে নিলে গ্রাউন্ড স্টাফেরা শীঘ্রই বন্ধ করে দিতে পারে তাঁদের পরিসেবা।