রবীন্দ্রনাথকে নিষ্কৃতি দেয়নি বাঙালি। শয়নেস্বপনে, উঠতে বসতে তাঁর উদ্ধৃতি ঝোলে বাঙালির ঠোঁটে। স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী তাঁর কবিতা আবৃত্তি না করে মঞ্চ ছাড়েন না। এবার তাঁর শরণাগত হলেন পাক প্রধান ইমরান খান। 

এদিন নিজের ট্যুইটারে টুইটারে পোস্ট করেন ইমরান খান। ট্যুইটে লেখা- "I slept and I dreamed that life is all joy. I woke and I saw that life is all service. I served and I saw that service is Joy."  তিনি দাবি করেন এই উদ্ধৃতিটি খলিল গিব্রানের। নেটিজেনরা পোস্টটি শেয়ার হতেই রীতিমতো ঝাঁপিয়ে পড়েন  পাক প্রেসিডেন্টের বিরুদ্ধে। তাঁদের দাবি, এই উদ্ধৃতিটি রবীন্দ্র কবিতার তর্জমা। ইমরানকে রীতিমতো তথ্য যাচাইয়ের নির্দেশ দেন বিশিষ্টজনেরা। পোস্টটি ভাইরাল হয় কিছুক্ষণেই। সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা রবীন্দ্রপ্রেমীরা মোটেই বিষয়টিকে ভাল ভাবে নেননি। তবে এই ধরনের ভুল এই প্রথম নয়। এর আগেও নানা কাণ্ড করে ট্রোলড হয়েছেন ইমরান। পুলওয়ামা হামলার প্রত্যাঘাতের পরেই নেটিজেনদের সামনে আসে তিনি প্রেশার মাপাচ্ছেন প্রেশারমাপক যন্ত্রে। এখানেই শেষ নয়।
 

কিছুদিন আগেই সাংহাই কর্পোরেশান সামিটেও একটি কাণ্ড ঘটিয়ে টুইটারেত্তিদের হাসিয়েছিলেন ইমরান। সেবার একটি ছবিতে দেখা যায়, সামিটের কূটনৈতিক নিয়মলঙ্ঘন করছেন ইমরান খান। উপস্থিত অভ্যাগতদের আমন্ত্রণ জানাতে যখন সবাই দাঁড়িয়ে রয়েছেন, তখন বসে ছিলেন ইমরান। এই ছবিটিও ভাইরাল হয়। 

এদিনও সেই রকমই ঘটনার পুনরাবৃত্তি হল, এই ভুলটি অবশ্য সহজে মেনে নিতে পারছেন না রবীন্দ্রভক্তরা।