পরিবাহ কাণ্ডে রাতের ঘুম উড়ে গিয়েছিল রাজ্য় সরকারের। রাজ্য জুড়ে তুমুল অচলাবস্থা জারি হয়, কার্যত ভেঙেই পড়ে চিকিৎসা ব্যবস্থা। বহু বাক বিতণ্ডার পরে সেই অবস্থা বদলের ইঙ্গিত পাওয়া যায়। মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে জুনিয়র ডাক্তারদের লাইভ মিটিং হয়। সেখানেই মুখ্যমন্ত্রী বলেন, জুনিয়র ডাক্তারদের  সমস্ত দাবিদাওয়া মেনে নেবেন তিনি। কথা দেন, দোষীরা চরমতম শাস্তি পাবে। কিন্তু সাম্প্রতিক পরিস্থিতি অন্য কথা বলছে। পরিবহ মুখোপাধ্যায় নিগ্রহ কাণ্ডে পাঁচজনের  জামিন  হয়ে গিয়েছে এদিন। আদালতের দাবি, পরিবাহর নিগ্রহে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে পর্যাপ্ত প্রমাণ এখনও পাওয়া যায়নি।

আদালতের এই রায় প্রকাশিত হতেই ফের ক্ষোভের স্ফুলিঙ্গ দেখা দিচ্ছে চিকিৎসকদের মধ্যেই। আপাতত সিদ্ধান্ত হয়েছে‌ আগামীকাল ৩১ জন জুনিয়র ডাক্তার লিখিত অভিযোগ দায়ের করবেন স্বাস্থ্য শিক্ষা অধিকর্তার কাছে।

আরও পড়ুনঃ ডাক্তাররা কথা রেখেছে, কথা রাখলেন মমতাও, পরিবহকে দেখতে গেলেন মমতা
আন্দোলন শেষ, উঠছে রব 'আমরা কারা লক্ষ্মী ছেলে
 

প্রসঙ্গত এক রোগী মৃত্যু কেন্দ্র করে শুরু হওয়া গণ্ডোগোল গত মাসেই গোটা রাজ্যকে নাড়িয়ে দিয়েছে। পরিবাহ মুখোপাধ্যায়ের ক্ষত রোষের আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে বহুজনের মনে। শুরু হয় চিকিৎসকদের কর্মবিরতি। চিকিৎসকদের কর্মবিরতি ভঙ্গের সেই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রীর কাছে এই মামলার গতিপ্রকৃতি জানতে চেয়েছিলেন জুনিয়র ডাক্তাররা। তখন মুখ্যমন্ত্রী আশ্বস্ত করে বলেছিলেন, তাঁদের সমস্ত তথ্য দেবে লালবাজার। এরই সঙ্গে তিনি বলেন দোষীদের শাস্তি হবেই।

প্রসঙ্গত প্রমাণাভাবে জামিনের বিষয়টিকে  স্বাভাবিক ভাবেই মেনে নিতে পারছে না আন্দোলনকারী চিকিৎসকরা। তাদের মতে এত বড় ঘটনায় প্রমাণের অভাব পুলিশি নিস্ক্রিয়তারই বড় উদাহরণ। আগামী চব্বিশ ঘণ্টার মধ্যে বিষয়টি সম্পর্কে আশাব্যঞ্জক কোনও উত্তর না পেলে ফের পথে নামতে পারেন চিকিৎসকরা।