লন্ডন নয়, দিদির সাধের কলকাতা এখন করাচি হওয়ার পথে। ছাত্র বিক্ষোভের পিছনে যে নেতারা কলকাঠি নাড়ছেন, আসলে তারা চিরকূট। এমনই অভিযোগ করলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু।  

সিএএ নিয়ে উত্তাল প্রতিবাদ  দেখেছে রাজ্য়বাসী। কলকাতায় নিজেই সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদে পথে নেমেছেন তৃণমূল নেত্রী।  সিএএ ইস্যুতে বিজেপি বিরোধিতায় সামিল হয়েছে যাদবপুর থেকে অন্যান্য় কলেজের ছাত্রছাত্রীরা।  এবার সেই সিএএ বিরোধী আন্দোলনকারীদেরই নিশানা করলেন বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসু। আন্দোলনকারীদেরই কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে বিজেপি নেতা বলেন,সিএএ-র বিরুদ্ধে ছাত্রদের নাম দিয়ে কলকাতায় যাঁরা আন্দোলন করছেন, তাঁরা ছাত্র নন, চিরকূট। বিজেপি কয়েক ঘা দিলেই পালিয়ে যাবেন।

এই বলেই অবশ্য় থেমে থাকেননি বিজেপি নেতা। সংশোধিত নাগরিকত্ব আইনের বিরোদিতা করায় একহাত নিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্য়োপাধ্যায়কেও। সায়ন্তনের দাবি, সিএএ বিরোধিতায় মমতার সভায় এখন ভিড় কমছে।  তবে কলকাতায় যেভাবে প্রতিবাদের নামে বিভ্রান্তি ছড়ানো হচ্ছে তাতে কলকাতা লন্ডন নয়, ক্রমশই করাচি হওয়ার পথে এগিয়ে চলেছে।
 
বিল পাশ হওয়ার পর থেকেই সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন নিয়ে কেন্দ্র বিরোধিতায় সরব হয়েছেন মমতা ৷ সিএএ বাতিলের দাবিতে একটানা আন্দোলন চালিয়ে যাওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তিনি। কেরল, রাজস্থান, পঞ্জাবের পথে হেঁটে রাজ্য বিধানসভাতেও সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন বিরোধী প্রস্তাব পাশ হয়েছে রাজ্য়  বিধানসভায়। তবে বিজেপি যে সিএএ-র বাস্তবায়ন থেকে সরছে না তা সায়ন্তন বসুর বক্তব্য়  থেকেই স্পষ্ট।