সাধারণ মানুষের বন্দিদশায় ভরসা জোগাতে এবার রাস্তায় নামল কলকাতা পুলিশ। করোনা যুদ্ধে জয় করতে মহানগরবাসীর পাশে দাঁড়ালেন পুলিশকর্মীরা। তবে করোনা মেকাবিলায় কেঠো সচেতনতার বার্তা দিয়েই থামলেন না তাঁরা। গৃহবন্দি মানুষগুলোর মুখে হাসি ফোটাতে গান ধরল কলকাতা পুলিশ। একে একে সবার মুখে জুড়ে গেল 'উই শ্য়াল ওভারকাম'...

১৪ এপ্রিল এখনও ঢের দেরি। ক্যালেন্ডার বলছে, মাস পয়লাতেই লকডাউনে হাঁপিয়ে উঠেছে মহানগরবাসী। করোনা সংক্রমণের আতঙ্কে বাইরে পা দিচ্ছেন না আবাসনের লোকজন। কিন্তু সকাল থেকে বিকেল হতেই দাঁড়িয়ে পড়ছেন বারান্দায়। বুধবার মহানগরের মনের ব্যালকনিতে উঁকি দিয়েছে কলকাতা পুলিশ । থানার বড়বাবুর সঙ্গে বারান্দা থেকেই গান জুড়েছে আট থেকে আশি। 

এতদিন  যাদের লাঠি, বন্দুক হাতে দুষ্কৃতী দমনে দেখেছে মহানগর,বিপদে সেই পুলিশকাকুরাই হয়ে গিয়েছেন জীবনমুখী গায়ক। এ একেবারে স্টেজ পারফর্মার। নিজে গানের সঙ্গে সঙ্গে সবাইকে নিয়ে গেয়ে বেড়াচ্ছেন আবাসন। প্রথমে কেউ লজ্জায় মুখ না খুললে ইশারায় বুঝিয়ে দিচ্ছেন শুনতে পাচ্ছেন না  তাঁরা। কলকাতা পুলিশের এই উদ্য়োগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেকেই। শত্রু করোনা রুখতে ডাক্তারের সঙ্গে সঙ্গে এখন পুলিশ বন্ধুও পাশে দেখে ভরসা পাচ্ছে কলকাতা। 

কদিন আগেই কলকাতা পুলিশের মানবিক  মুখ দেখে চমকে গিয়েছে মহানগর। নিজেরাই প্রবীণ নাগরিকের বাড়িতে গিয়ে কী লাগবে জিজ্ঞাসা করছে কলকাতা পুলিশ। এমনকী লকডাউনে বাজার থেকে ওষুধ না পেলে তাদের খবর দিতে বলেছেন অনেক পুলিশকর্মী। চিকিৎসকরা বলছেন, সারা বিশ্বে করোনা নিয়ে নেতিবাচক বার্তা মনে বিরূপ প্রভাব ফেলছে সবারই। কারা সুস্থ হয়ে উঠছেন, তার থেকে বড় হয়ে দাঁড়াচ্ছে কারা মারা গেলেন। বন্দিদশায় কলকাতার এই ভাঙাচোরা মনকে জুড়তেই এখন গান ধরেছে কলকাতা পুলিশ। মুখে মাইক আর দরাজ কণ্ট জানাচ্ছে - আমরা করব জয় নিশ্চয়.....