করোনা রুখতে রাজ্য়জুড়ে চলছে লকডাউন। আর এবার লকডাউন পরিস্থিতিতে  আকাশ পথে ড্রোন উড়িয়ে মানুষের গতিবিধির ওপর নজর রাখছে লালবাজার। আর ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে ড্রোনে নজরদারির প্রক্রিয়া।লকডাউন চলাকালীন  বিনা প্রয়োজনে কারা রাস্তায় নামছেন এবং কোন এলাকায় মানুষ লকডাউন উপেক্ষা করে রাস্তায় বের হচ্ছেন, এবার সেই সব কিছুতে নজর রাখছে ড্রোন-ক্য়ামেরার মাধ্য়মে লালবাজার। 

আরও পড়ুন, এমআর বাঙ্গুরের আইসোলেশন ওয়ার্ডে ৫ রোগীর মৃত্যু, কারণ জানতে অপেক্ষা নমুনা পরীক্ষার রিপোর্টের

পুলিশি সূত্রে খবর, মূলত যে সব এলাকায় বারবার সতর্ক সত্ত্বেও মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে এসে লকডাউন লঙ্ঘন করছেন, সেই এলাকাতেই ওড়ানো হচ্ছে ড্রোন। শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে কলকাতায় ড্রোনের মাধ্যমে নজরদারি। শুক্রবার শ্যামবাজার এলাকায় ড্রোন ওড়ানো হয়। শনিবার পোস্তা এবং বড়বাজার এলাকায় ড্রোন উড়িয়ে অলিগলিতেও নজর রাখে লালবাজার।এই ড্রোনের সঙ্গে সংযোগ করা ছিল লালবাজার কন্ট্রোল রুমের। ড্রোনে থাকা ক্যামেরার মাধ্যমে বড়বাজার, পোস্তার রাস্তা-অলিগলির ছবি 'লাইভ' দেখেছে লালবাজার কন্ট্রোল রুম। এবং কোন কোন এলাকায় মানা হচ্ছে না লকডাউন তার তালিকা তৈরি করা হচ্ছে।


আরও পড়ুন, পার্ক সার্কাসের বেসরকারি হাসপাতালে প্রৌঢ়ের মৃত্য়ু, করোনা রিপোর্ট পজিটিভ আসতেই অভিযোগ তুলল পরিবার

পুলিশি সূত্রে জানা গিয়েছে, ড্রোনের মাধ্যমে পাওয়া সমস্ত ভিডিওগুলি স্টোর করে রাখা হচ্ছে লালবাজারে। সেগুলি পরীক্ষা করে এবার এলাকা চিহ্নিত করা হবে। এরপর পরবর্তীতে ওই ভিডিও-র রেকর্ড অনুযায়ী সেই এলাকায় আরও কড়া ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। লালবাজার সূত্রে খবর, কলকাতার বিভিন্ন এলাকায় এভাবে সবার অজান্তেই উড়বে ড্রোন। তার মাধ্যমেই চিহ্নিত করা হবে কোন এলাকায় মানুষের মধ্যে লকডাউন উপেক্ষা করার প্রবণতা বেশি। লালবাজারের এক কর্তা বলেন, 'এর মাধ্যমেই আমরা বুঝিয়ে দিতে চাইছি সবদিক থেকে সবরকম ভাবেই নজর রয়েছে আমাদের। তাই লকডাউন মানুন। বাড়িতে থাকুন।'

 

 

এনআরএস-র আরও ৪৩ জন স্বাস্থ্য কর্মীর রিপোর্ট নেগেটিভ, স্বস্তিতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ

করোনার রোগী সন্দেহে বৃদ্ধকে বেধড়ক মার, স্যালাইনের চ্যানেল করা হাতে দড়ি পড়ালো মানিকতলাবাসী

করোনায় আক্রান্ত এবার কলকাতার ২ ফুটপাথবাসী, হোম কোয়ারেন্টাইনে উদ্ধারকারীরা