গরুপাচার কাণ্ডে নয়া মোড়। কলকাতার কফিশপগুলিতেই  গরু পাচার কাণ্ডের বৈঠক বসত। পাচারকারীরা এখানে বসেই যাবতীয় ছক তৈরি করত। উল্লেখ্য, ইতিমধ্য়েই এই ঘটনায় উঠে এসেছে একাধিক বিএসএফ অফিসারের নাম। আর এবার তদন্তে উঠে এল অবাক আরও একাধিক নতুন তথ্য।

আরও পড়ুন, পুজোর আগেই ধামাকা উপহার, ই-পাসের সংখ্যা বাড়ছে কলকাতা মেট্রোয়

  সূত্রের খবর,  সিবিআই অফিসারেরা তদন্তে নামতেই উঠে এল একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। মধ্য কলকাতার রেস্তরা- কফিশপগুলিতে হামেশাই যাতায়াত লেগে থাকত এনামূল হক, আনারুল শেখ ও মহম্মদ মোস্তাকদের। আর এখান থেকেই গরু পাচার এবং টাকা পয়সার যাবতীয় লেনদেন চলত। এছাড়া উত্তরপ্রদেশের মানুষদেরও গরুপাচার ঘিরে যাতায়াত ছিল। শীঘ্রই কপিশপের সকল কর্মীকে তদন্তকারীরা ডেকে পাঠাবে। 

আরও পড়ুন, করোনায় রেকর্ড ভেঙে ফের শীর্ষে কলকাতা, আশঙ্কার মেঘ উত্তর ২৪ পরগণাতেও


অপরদিকে, বিএসএফ কর্তা সতীশ কুমারের সঙ্গে আন্তর্জাতিক গরু পাচার চক্রের মাথা এনামূল হকের যোগাযোগ আর পরিষ্কার হয়ে উঠেছে। তদন্ত সূত্রে জানা গিয়েছে, বিএসএফ কর্তা সতীশ কুমারের মুর্শীদাবাদে একটা বাড়ি আছে, যেটা এনামূল বানিয়ে দিয়েছে। তাঁর ছেলেকে চাকরীও দেওয়া হয়েছে। এখানেই শেষে উপহারের তালিকায় রয়েছে একটি গাড়িও। 

আরও পড়ুন, ভিসা ছাড়াই বিশ্ব-ভ্রমণ, বহাল তবিয়তে এই ১৬ টি দেশে ঘুরে আসতে পারবেন ভারতীয়রা, দেখুন ছবি

ক্ষমতায় আসার পরেই বাংলাদেশে গরু পাচার রোধে বিএসএফকে বিশেষ করে তৎপর হওয়ার নির্দেশ দিয়েছে মোদী সরকার। যার জেরে বাংলাদেশে অনেকটাই দাম বেড়েছে মাংসের। তবুও গরু পাচার বন্ধ করা যায়নি। কাদের মদতে এই পাচার কাণ্ড চলছে, তা জানতে অভিযান চালাচ্ছে সিবিআই কলকাতা-সহ রাজ্যে।গরুপাচার কাণ্ডে আরও অনেক তথ্য এবার হাতে লাগতে পারে অনুমান তদন্তকারিদের।

আরও পড়ুন, বৃষ্টিতে বিরিয়ানি থেকে তন্দুরি, রইল কলকাতার সেরা খাবারের ঠিকানার হদিশ
 

    

 

বিষম খেয়ে শিশু মৃত্যু, হাসপাতালকে জরিমানা কমিশনের, কোভিড-ক্রাইমে ফের অভিযুক্ত ডিসান

চিকিৎসা সংক্রান্ত খরচ গোপন, কলকাতার ৬ হাসপাতালের বিরুদ্ধে মামলা স্বাস্থ্য কমিশনের

কোভিড আক্রান্তের ফ্ল্য়াটে ঝুলল তালা, বিপাকে পরিবার, রইল করোনা ক্রাইমের সাতকাহন