কলকতা তথা শহরতলির মুখে হাসি ফুটলেও মুখ ভার থাকবে জেলার। আগামী ২৪ ঘণ্টার জন্য এমনই আবহাওয়ার পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দফতর। স্বাভাবিকভাবেই এই খবরে কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়েছে জেলার পুজো কমিটির উদ্য়োক্তাদের।

আপাতত পিছু ছাড়ছে না বৃষ্টি। আগামী ২৪ ঘণ্টায় জেলায় বিক্ষিপ্ত ভাবে রয়েছে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা। এমনই আশঙ্কা করছে হাওয়া অফিস।  আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে,
একটা ঘূর্ণাবর্ত দক্ষিণ পূর্ব উত্তরপ্রদেশের উপরে এখনও রয়েছে। এছাড়াও নিম্নচাপ ঘণীভূত হয়েছে বিহার থেকে দক্ষিণবঙ্গ হয়ে অসম পর্যন্ত। এতে আগামী ২৪ ঘণ্টায় মুর্শিদাবাদ,বীরভূম,পশ্চিম বর্ধমান,বাঁকুড়া, পুরুলিয়ায় ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। ভারী বৃষ্টিপাত থেকে বাদ যাবে না পূর্ব বর্ধমান, দুই মেদিনীপুর,উত্তর ২৪ পরগনা, হাওড়া, হুগলি এবং নদিয়া। তবে আগামী ২৪ ঘণ্টায় দক্ষিণবঙ্গে ভারী বৃষ্টি হলেও কলকাতায়  বষ্টিপাতের পরিমাণ কমবে।

শনিবার রাত থেকে টানা বৃষ্টির জেরে কলকাতা ও শহরতলির বহু অঞ্চলে জল জমে যায়। খোদ জলের তলায় চলে যায় বেহালার বেশ কয়েকটি ওয়ার্ড। রবিবার সকাল থেকেই কলকাতচার বিভিন্ন অঞ্চলে মুষলধারে বৃষ্টি হয়েছে। যদিও বেলা বাড়তেই সূর্যের দেখা মিলেছে এদিন।  বিক্ষিপ্তভাবে বৃষ্টি হবে উত্তরবঙ্গের মালদা, দুই দিনাজপুর, দার্জিলিং ,জলপাইগুড়ি,কালিম্পং,কোচবিহার,আলিপুরদুয়ারে। এইসব জায়গায় মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তবে সবথেক চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে শরৎকালে এই বৃষ্টির ফলে জলস্তর বাড়ছে নদীর। বহু জায়গায় নদীর পাড়ে ধস নামা শুরু হয়েছে। এরকম টানা বৃষ্টি চললে ফের অকালে বন্যার মুখোমুখি হতে পারে রাজ্য। সেক্ষেত্রে প্লাবিত হবে কলকাতাও। অতিরিক্ত বৃষ্টিপাত হলে ভাসবে শহর কলকাতা ও শহরতলি। কারণ ব্রিটিশ আমলের নিকাশি ব্য়বস্থা এখনও ঠিক না হওয়ায় আগেও এই আশঙ্কা করেছেন মেয়র।