করোনাভাইরাসের গোষ্ঠী সংক্রমণের ভয়ে কাঁপছে গোটা রাজ্য় তথা দেশ। যার জেরে একদিনের জনতা কার্ফুর পর টানা ২১ দিনের জন্য দেশ লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্রীয় সরকার। এদিকে লকডাউনের জেরে কার্যত স্তব্ধ গোটা দেশ। সমস্যায় পড়েছেন অনেকেই। সেই তালিকায় বাদ যাচ্ছেন না বিচারপ্রার্থীরাও। তবে এবার বিকল্প পথে হাটছেন তাঁরা। হাইকোর্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এবার স্কাইপেই দেওয়া হবে মামলার রায়। 

আরও পড়ুন, সংক্রমণ রুখতে সংশোধনাগারে বড়সড় পদক্ষেপ, রাজ্য়ে 'করোনা' মুক্তি ৩০৭৮ বন্দীর

করোনা সংক্রমণ রুখতে আদালতের বদলে বাড়ি বা অফিসে বসেই জরুরি মামলা মিটিয়ে নিতে পারবেন আইনজীবীরা। সেক্ষেত্রে নিরাপদ জায়গায় বসেই বিচার করবেন বিচারপতিরা। শনিবার হাইকোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল রাই চট্টোপাধ্যায় প্রধান বিচারপতির তরফে এক নির্দেশিকা জারি করে এই তথ্য জানিয়েছেন। হাইকোর্টের বক্তব্য, স্কাইপির মাধ্যমে আইনজীবী ও বিচারপতিদের মধ্যে যোগাযোগ রেখে বিচারকার্য চালিয়ে যাবে কোর্ট।  উল্লেখ্য, বন্দিদের গোষ্ঠী সংক্রমণের থেকে বাঁচাতে দ্রুত জামিনের জন্য় আগেই উচ্চ পর্যায় কমিটি গঠন করেছিল হাইকোর্ট।

আরও পড়ুন, এবার করোনা আক্রান্ত উত্তরবঙ্গে, রাজ্য়ে সংখ্যা বেড়ে ১৮


অপরদিকে, বন্দিদের কীভাবে জামিন ও প্যারোল দেওয়া যায় তা দেখবে কমিটি। ৩১ মার্চ সেই রিপোর্ট জমা দেবে কমিটি। উল্লেখ্য, সালসা তাঁদের প্যানেলভুক্ত আইনজীবীদের যারা আসতে  ইচ্ছুক তাদের জামিনের জন্য নিয়োগ করবে বলে জানা গিয়েছে৷ তবে এরপর লকডাউন চলাকালীন আদালতের জরুরী কাজ গুলি  সব স্কাইপেই সমাধান করা হবে।


আরও পড়ুন, এগড়ায় বিয়েবাড়ি থেকে দুই মহিলার করোনা ! নয়াবাদের আক্রান্ত থেকেই সংক্রমণ