Asianet News Bangla

নয়া রেকর্ড মাধ্যমিকে, মার্কশিটে একাধিক রদবদল, দেখে নিন একনজরে

  • প্রকাশিত হল মাধ্যমিকের রোজাল্ট
  • ৬৯৪ নম্বর পেয়ে  রাজ্যে প্রথম হয়েছে অরিত্র পাল
  • আগামী ২২ ও ২৩ তারিখ স্কুল থেকেই মার্কশিট পেয়ে যাবে ছাত্র-ছাত্রীরা
  •  ২২ জুলাই সকাল ১০ টা থেকে দেওয়া হবে মার্কশিট
Madhyamik result 2020  Aritra Pal became the first in the state to get 694 marks BRd
Author
Kolkata, First Published Jul 15, 2020, 11:01 AM IST
  • Facebook
  • Twitter
  • Whatsapp

প্রকাশিত হল মাধ্যমিকের রোজাল্ট। দীর্ঘ প্রতীক্ষার পরে লকডাউনে সাংবাদিক বৈঠকের পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করলেন  মধ্যশিক্ষা পর্ষদের চেয়ারম্যান কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায়। প্রতি বছর আজকের দিনেই আগামী বছরের দিনক্ষণ ঘোষণা করা হয়। এবার তা আরা হল না। আগামী ২২ ও ২৩ তারিখ স্কুল থেকেই মার্কশিট পেয়ে যাবে ছাত্র-ছাত্রীরা। 

আরও পড়ুন-মাধ্যমিক রেজাল্ট LIVE, সাফল্যের হারে শীর্ষে পূর্ব মেদিনীপুর, মেধাতালিকায় সংখ্যালঘু কলকাতা...

 স্কুলগুলিতে  মার্কশিট দেওয়ার বিষয়ে নির্দিষ্ট কিছু গাইডলাইন তৈরি হয়েছে, দেখে নিন একনজরে-

 মাধ্যমিকের ১৩৯ দিনের মাথায় ফলপ্রকাশ।

এ বারের মাধ্যমিক পরীক্ষায় মোট আট লক্ষ ৪৩ হাজার ৩০৫ জন উত্তীর্ণ হয়েছেন।

পাসের হারে নতুন রেকর্ড। ৮৬.৩৪ শতাংশ পাস করেছে। 

মেধা তালিকায় প্রথম দশে ৮৪ জন।

তৃতীয় হয়েছে তিন জন—  সৌম্য পাঠক, দেবষ্মিতা মহাপাত্র, অরিত্র মাইতি, তাঁদের প্রাপ্ত নম্বর ৬৯০। 

 দ্বিতীয় হয়েছে বাঁকুড়ার সায়ন্তন গড়াই ও পূর্ব বর্ধমানের অভিক দাস।

 পূর্ব বর্ধমানের মেমারি বিদ্যাসাগর মেমোরিয়াল স্কুলের অরিত্র পাল রাজ্যে প্রথম হয়েছে। ৭০০-র মধ্যে ৬৯৪ নম্বর পেয়েছে অরিত্র।

 ছাত্রদের মধ্যে পাসের হার ৮৯.৮৭%, ছাত্রীদের পাসের হার ৮৩.৪৭%।

 ২২ জুলাই সকাল ১০ টা থেকে দেওয়া হবে মার্কশিট।

পাসের হার সবথেকে বেশি পূর্ব মেদিনীপুরে। ৯৬.৫৯ শতাংশ

 পাসের হারে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে পশ্চিম মেদিনীপুর (৯২.১৬ শতাংশ) ও কলকাতা (৯১.০৭ শতাংশ)

আরও পড়ুন-মাধ্যমিকে পাসের হারে ফের রেকর্ড, গতবারের পাসের হারকেও পিছনে ফেলল ২০২০...

চলতি বছরের  ১৮ ফেব্রুয়ারি থেকে মাধ্যমিক পরীক্ষা শুরু হয়েছিল।  গত বারের তুলনায় এ বার পরীক্ষার্থীর সংখ্যা প্রায় ৩৩ হাজার কমলেও, ছাত্রদের তুলনায় ছাত্রীর সংখ্যা বেশি ছিল। এই বছর মোট ১০ লক্ষ ১৫ হাজার ৮৮৮ জন পরীক্ষা দিয়েছে। ছাত্রদের সংখ্যা ছিল ৪ লক্ষ ৩৯ হাজার ৮৭৯ জন । এবং মেয়েদের সংখ্যা ছিল ৫ লক্ষ ৭৬ হাজার ৯ জন। মে মাসে ফল ঘোষণার কথা থাকলেও করোনা পরিস্থতির জেরে প্রায় দুমাস পিছিয়ে গেল ফল প্রকাশের সময়সীমা। শুধু তাই নয়, করোনা পরিস্থিতির জেরে মার্কশিট দেওয়ার ক্ষত্রেও বেশ কিছু রদবদল আনছে পর্ষদ। ছাত্রছাত্রীদের স্কুলে গিয়ে মার্কশিট আনার বদলে এবার তাঁদের অভিভাবকদের হাতে মার্কশিট তুলে দেবেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। তবে স্কুল স্যানিটাইজ করার পরেই মার্কশিট পাঠানো হবে।  স্কুল কর্তৃপক্ষই দিন ক্ষণ জানাবেন বলে জানিয়েছেন। 

Follow Us:
Download App:
  • android
  • ios