শুভেন্দু অধিকীরকে নিয়ে মুখে কুপুল এঁটেশে শাসকদল। তবে তাঁর দেওয়া ইস্তফাপত্র গৃহীত হয়েছে বলে সোশ্যাল মিডিয়ায় জানিয়েছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকড়়। দীর্ঘদিন ধরে চলা জল্পনায় জল ঢেলে শুক্রবার সকালেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মন্ত্রিসভা থেকে ইস্তফা দেন শুভেন্দু অধিকারী। তবে তিনি এখনও দলথেকে পদত্যাগ করেননি। ছাড়েননি বিধায়ক পদও। সোশ্যাল মিডিয়ায় বার্তা দিয়ে রাজ্যপাল জানিয়েছেন, মমতা বন্ধ্যোপাধ্যেয়ের সুপারিশ অনুযায়ী শুভেন্দু অধিকারী পদত্যাগ পত্র তিনি গ্রহণ করেছেন। শুভেন্দু অধিকারীর দায়িত্বে থাকা পরিবহন, সেচ ও জনস্বাস্থ্য এই তিনটি দফরের দায়িত্ব বর্তমানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের হাতে রেখেছেন।

অন্যদিকে শুভেন্দু অধিকারী পদত্যাগ করার পরেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কালীঘাটের বাড়িতে বিশেষ বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন, ফিরহাদ হাকিম, অরূপ বিশ্বাস, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। জরুরি বৈঠকে ছিলেন ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোর। তবে বৈঠকের বিষয় নিয়ে এখনও পর্যন্ত মুখ খোলেননি তৃণমূল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। শুভেন্দু অধিকারীর পদত্যাগের পরবর্তী পরিস্থিতিতে কী কী সিন্ধান্ত নেওয়া হবে তা নিয়ে কেউ কোনও মন্তব্য করেননি। যদিও সূত্রের খবর এদিনের বৈঠকে জেলাভিত্তিক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। আগামী সপ্তাহ থেকেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুলে মিছিল ও মিটিং করবে ঘাসফুল কর্মীরা। পাশাপাশি সেই বৈঠকে রাজ্যের উন্নয়নের কথাও তুলে ধরা হবে। কেন্দ্রের বিরুদ্ধে বঞ্চনার অভিযোগ তুলে আগামী মাস থেকে রাস্তায় নামতে পারেন তৃণমূল সুপ্রিমো। 

'আশা আছে এখনও, আরও আলোচনা চায় শুভেন্দু', মন্ত্রিসভা থেকে পদত্যাগ করার পর বললেন সৌগত রায় ...

কারা শুভেন্দুর পথে বিছিয়ে ছিলেন কাঁটা, যার জন্য মমতার মন্ত্রিসভা ছাড়লেন কাঁথি দক্ষিণের বিধায়ক ..

অন্যদিকে রবিবার মহিষাদলে জনসভা করার কথা রয়েছে শুভেন্দু অধিকারীর। তাম্রলিপ্ত জনকল্যাণ সমিতির ব্যানারে এই সভার আয়োজন করা হয়েছে। এই সমিচতির চেয়ারম্যান পদেও রয়েছেন শুভেন্দু। সেই সভা থেকেই শুভেন্দু তাঁর পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করেন কিনা সেদিকেই তাকিয়ে রয়েছে তৃণমূল বিজেপি -সহ রাজনৈতিক মহল।