দশ বছরের রেকর্ড কি ভেঙেই ফেলল বর্ষা। আবহাওয়া দফতরের যা পূর্বাভাস, তাতে কলকাতায় দেরিতে আগমণের নিরিখে নয়া রেকর্ড তৈরি করতে চলেছে বর্ষা। আবহাওয়া দফতরের পুরনো নথি বলছে, ২০১৫ সালে কলকাতায় বর্ষা ঢুকেছিল ১৯ জুন। কিন্তু এবছর বাংলার রাজধানীতে বর্ষার পৌঁছতে আরও অন্তত তিন থেকে চার দিন সময় লাগবে বলেই জানাচ্ছে হাওয়া অফিস। 

আবহাওয়া দফতরের দেওয়া তথ্য বলছে, স্বাভাবিক নিয়মে কলকাতায় বর্ষা প্রবেশ করার কথা ৮ জুন। গত বছর কলকাতায় বর্ষা ঢুকেছিল জুনের ১১ তারিখে। অর্থাৎ স্বাভাবিকের থেকে মাত্র তিন দিন দেরিতে। অথচ এ বছর ১৯ তারিখ হয়ে গেলেও বর্ষার অপেক্ষায় চাতক পাখির মতো বসে রয়েছে কলকাতা- সহ গোটা দক্ষিণবঙ্গ।

উত্তরবঙ্গে বর্ষা প্রবেশ করেছে জুনের পাঁচ তারিখে। সেখানে টানা বৃষ্টিও চলছে। স্বাভাবিক নিয়ম অনুযায়ী, উত্তরবঙ্গে বর্ষা প্রবেশে তিন দিনের মধ্যেই তা কলকাতায় পৌঁছনোর কথা। কিন্তু এবার বর্ষা যেনস লেট লতিফ। তবে আর যাই হোক এবার অন্তত ১৯৮৩ সালের রেকর্ড অক্ষত থাকবে বলেই আশাবাদী হাওয়া অফিসের কর্তারা। কারণ সেবছর কলকাতায় বর্ষা ঢুকেছিল ২৬ জুন। 

মঙ্গলবার বিকেলে কলকাতায় এক পশলা ভারী বৃষ্টি হয়। বৃষ্টি হয়েছে কলকাতা সংলগ্ন এলাকাগুলিতেও। সাময়িক স্বস্তি মিললেও বুধবার সকাল থেকে ফের গরমে নাজেহাল শহরবাসী। বাঁকুড়া, পুরুলিয়ার মতো পশ্চিমাঞ্চলের জেলাগুলিতে এখন তাপপ্রবাহের মতো পরিস্থিতি চলছে। সবার তাই এখন একটাই প্রার্থনা, নতুন রেকর্ড তৈরি না করে যত দ্রুত সম্ভব দক্ষিণবঙ্গে আসুক বর্ষা।