বষ্টি স্নাত কলকাতা। গরমের অস্বস্তিতে যখন ঘেমে-নেয়ে একসা শহর। ঠিক তখনই যেন একটা স্বস্তির আমেজ এনে দেওয়ার বার্তা দিল ইদের সকালের এই বৃষ্টি। ফি বছরই ইদের দিনে রেড রোডে খোলা আকাশের নিচে বসে নমাজ পড়ার আসর। এবারও তার অন্যথা হয়নি। কিন্তু, সকালের বৃষ্টি খানিকটা হলেও চিন্তার ভাঁজ ফেলে দেয় নমাজ পড়ায় অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে। কারণ, শুধু যে রেড রোডে নমাজ পড়া হচ্ছে এমনটা তো নয়, কলকাতা ও তার শহরতলির বহু স্থানেই এই বিশেষ উৎসবের দিনটিতে নমাজ পড়তে ভিড় জমে যায়। 
আরও পড়ুন- ইকবালপুরে ইফতারে মমতা, হল 'গরুর' কথা রাখা

এদিন সকাল থেকেই কলকাতা জুড়ে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টি শুরু হয়। কখও জোড়ে, আবার কখনও বা হালকা বৃষ্টি চলতে থাকে। আবহাওয়া দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে, এটা প্রাক বর্ষার বৃষ্টি। বর্ষা এবারও বাংলার বুকে নির্দিষ্ট সময়ের থেকে বিলম্বে আসতে পারেই বলে মনে করছে মৌসম ভবন। সাধারণত জুন মাসের ১০ তারিখকে বর্ষার আগমন হিসাবে ধরা হয়। এখন পর্যন্ত যা পূর্বাভাস তাতে কেরল দিয়ে বর্ষার প্রবেশ ঘটতে বৃহস্পতিবার গড়িয়ে যেতে পারে। 

আরও পড়ুন- গাছ লাগিয়ে নাম রাখলেন 'মিমি-গাছ'! বারুইপুর ঘুরে দেখে কী বললেন তারকা-সাংসদ

জানা গিয়েছে ঝাড়খণ্ড ও বাংলাদেশের উপরে ঘূর্ণাবর্ত তৈরি হয়েছে এবং এর প্রভাব পড়েছে দক্ষিণবঙ্গেও। ফলে কলকাতা এবং দক্ষিণবঙ্গের কিছু জেলায় আকাশ মুখ ভারী করে বিক্ষিপ্ত বৃষ্টিপাত ঘটিয়ে চলছে। এই বৃষ্টিতে গরমের অসহনীয়তা কতটা কমবে তাতে সন্দেহ আছে। কারণ, আলিপুর আবহাওয়া দফতরের স্পষ্ট ইঙ্গিত গরমের তাপমাত্রার হেরফের না হওয়ারই সম্ভাবনাা বেশি। 

আরও পড়ুন- আলিয়ার সঙ্গে এবার একই পর্দায় যীশু! সড়ক-২ নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে

এই ঘূর্ণাবর্তের জেরে দক্ষিণবঙ্গের কিছু জেলায় বুধবার ও বৃহস্পতিবার বৃষ্টি-র মাত্রা বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এই জেলাগুলির মধ্যে আছে- মুর্শিদাবাদ, বীরভূম, নদিয়া, পূর্ব-মেদিনীপুর, হাওড়া ও দুই ২৪ পরগণা। উত্তরবঙ্গেও হালকা ও বিক্ষিপ্ত বৃষ্টির পূর্বাভাস জারি করা হয়েছে।