লাভপুর হত্যাকাণ্ডে নাম জড়ানো বিজেপি নেতা  মুকুল রায়ের খানিকটা স্বস্তি মিলল আদালত থেকে। মুকুল রায়কে আরও ২ সপ্তাহ গ্রেফতার করা যাবে না বলে বৃহস্পতিবার অন্তর্বর্তীকালীন স্থগিতাদেশের মেয়াদ বাড়ায় বিচারপতি জয়মাল্য বাগচি এবং বিচারপতি শুভ্রা ঘোষের ডিভিশন বেঞ্চ। তবে ২৯ ফেব্রুয়ারির পরিবর্তে  আগামী ২ মার্চ দুপুর ১২ টা থেকে ২ টোর মধ্যে সিউড়ি থানায় তাঁকে হাজির হতেই হবে বলে আদালত স্পষ্ট করে দিয়েছে।  

জঙ্গলমহলের এই 'ফরেস্টম্য়ান' সারাটা জীবন রাত জেগে থাকতেন, 'জঙ্গলে আগুন লাগতো না তো'

এদিন মুকুলের আইনজীবী বলেন, লাভপুর কেসের তদন্তে জিজ্ঞাসাবাদ করতে  মুকুলকে সিউড়ি থানায় তলব করা হয়েছে আগামী ২৯ ফেব্রুয়ারি। কিন্তু দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা অমিত শা আগামী ১ মার্চ কলকাতায় আসছেন। দলীয় কাজে ব্যস্ত থাকবেন মুকুল। তাই ২৯ ফেব্রুয়ারি থানায় যেতে পারবেন না। ডিভিশন বেঞ্চ ২৯ ফেব্রুয়ারির পরিবর্তে ২ মার্চ থানায় যাবার নির্দেশ দিয়েছে। 

অমিত শাহ ঢুকলেই কালো পতাকা, গো-ব্যাক স্লোগানের প্রস্তুতি নিচ্ছে সিপিএম

বস্তুত, ২০১০ সালে বীরভূমের লাভপুরের নবগ্রামে ৩ ফরওয়ার্ড ব্লক সমর্থক খুন হন। বালি তোলাকে কেন্দ্র করে গোলমালের জেরে লাভপুরের তৎকালীন ফরওয়ার্ড ব্লক বিধায়ক মনিরুল ইসলাম তার বাড়িতে সালিশ সভা ডাকে। সেখানে ধানু শেখ, কাটুন শেখ ও তুরুক শেখ নামে তিন ভাইকে হত্যা করা হয়। সেই মামলায় গত শনিবার বোলপুর আদালতে সাপ্লিমেন্টারী চার্জশিট জমা দেয় পুলিশ। শেখ পরিবারের তিনভাইকে হত্যা করায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগ এনে সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিটে মুকুলের নাম  রেখেছে পুলিশ। গ্রেফতারি ঠেকাতে মুকুল আগাম জামিনের আবেদন জানান বিচারপতি জয়মাল্য বাগচির ডিভিশন বেঞ্চে।

পূর্বের নিরাপত্তা নিয়ে চিন্তা, শুক্রবার বাংলা সহ ৪ রাজ্য়ের সঙ্গে বৈঠক অমিত শাহের