সন্দেশখালি থেকে ফিরেই  রাজ্য সদর কার্যালয়ে সাংবাদিক বৈঠক করলেন মুকুল রায় ৷ সেখানে তিনি বলেন, "খুনী মুখ্যমন্ত্রী বিদ্যাসাগরের মূর্তি উন্মোচন করলেন ৷" উল্লেখ্য, আজ বিদ্যাসাগর কলেজে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিদ্যাসাগরের নতুন মূর্তি উন্মোচন করেন ৷ লোকসভা ভোটের প্রচারে ১৪ মে কলকাতায় অমিত শাহ এসেছিলেন ৷ তখন কলেজ স্ট্রিটে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা হয়। দুই পক্ষই পরস্পরের বিরুদ্ধে তোপ দাগে।

সন্দেশখালির ন্যাজাটে সংঘর্ষের ঘটনা নিয়ে মুকুল আজ বলেন, "আমি ন্যাজাট গেছিলাম । যে দু'জন মারা গিয়েছে এবং যাঁরা নিখোঁজ, তাঁদের পরিবারের সঙ্গে দেখা করে এসেছি । নন্দীগ্রামের যেমন খুনী মুখ্যমন্ত্রীর (বুদ্ধদেব ভট্টাচার্য) কথা উঠেছিল, তেমন এখন খুনী মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর শাড়িতে রক্তের দাগ লেগে আছে।"

উঠে আসে বাদুরিয়ার খাল থেকে মাংস উদ্ধারের ঘটনাও। তাঁর কথায়, "বাদুড়িয়ায় বস্তা ভরতি মাংস পাওয়া গেছে । প্রশাসন বলছে, ওটা পশুর মাংস। কিন্তু বিষয়টি সন্দেহজনক । বাংলাদেশ থেকে ন্যাজাটে অস্ত্র ঢোকে । আমরা চাই বিষয়টি নিয়ে এনআইএ তদন্ত হোক । নির্বিচারে গুলি চালানো হয়েছে ওখানে। আমার কাছে তালিকা আছে বাংলায় বিজেপির কতজন কর্মী মারা গিয়েছেন।"