স্বজনপোষণের পাশাপাশি মেট্রো ডেয়ারির শেয়ার বিক্রিতে সরাসরি দুর্নীতির অভিযোগ করল বিজেপি। এই দুর্নীতিতে মুখ্যমন্ত্রীকে কাঠগড়ায় দাঁড় করালেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

বউবাজার বিপর্যয়ের পাশাপাশি মেট্রো ডেয়ারির শেয়ার বিক্রি নিয়ে তদন্ত চাইল রাজ্য বিজেপি। বারাসত আদালতে বিজেপি নেতা মুকুল রায় বলেন, 'মেট্রোর ৪৮ শতাংশ শেয়ার বিক্রির ঘটনা আদতে সরাসরি চুরি। কোনোভাবেই মুখ্যমন্ত্রী এই দায় এড়িয়ে যেতে পারেন না। কারণ মেট্রো ডেয়ারির বিক্রির ২০ দিনের মাথায় অন্য একজনকে  এর শেয়ার ৪গুন দামে বিক্রি করা হয়েছে। তিনি আবার মুখ্যমন্ত্রীর বিদেশযাত্রার সফরসঙ্গী । এই ঘটনাই প্রমাণ করে মেট্রো ডেয়ারি বিক্রিতে দুর্নীতি হয়েছে। আমরা এর সিবিআই তদন্ত চাই।'

কাশ্মীরে ৩৭০ বাতিল হয়েছে, বাংলায় এনআরসিও হবে, মমতাকে হুঁশিয়ারি দিলীপের

বাঁদরের কামড়ে জখম বিধায়ক, পাগল বাঁদর চিনতে 'কামান দাগা'
তবে সিবিআই তদন্ত চাইলেও মেট্রো ডেয়ারির দুর্নীতিতে সরাসরি মমতা ব্যানার্জি জড়িত, একথা বলেননি মুকুল। সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে তিনি বলেন, 'যেহেতু মমতা মুখ্যমন্ত্রীর পদে থাকাকালীন এই দুর্নীতি হয়েছে, তাই এর দায় মুখ্য়মন্ত্রী অস্বীকার করতে পারেন না।' এখানেই থেমে থাকেনি বিজেপির অভিযোগনামা। এদিন বউবাজার বিপর্যয়েরও তদন্ত চেয়েছেন প্রাক্তন রেলমন্ত্রী। বৃহস্পতিবারই ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রো প্রকল্পের বিপর্যয় প্রসঙ্গে মুখ খোলেন লোকসভায় কংগ্রেসের নেতা অধীর চৌধুরী। তিনিও মেট্রো সুরঙ্গে বিভ্রাটের জন্য সাধারণ মানুষের হয়রানি নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। কেন এই ঘটনা ঘটল তার তদন্ত দাবি করেন অধীর।

এদিন মুকুল রায়ের মুখেও না শোনা যায় একই কথা। তিনি বলেন, 'আমি নিজে রেলমন্ত্রী থাকাকালীন কাগজটা দেখেছি। ইস্ট-ওয়েস্ট মেট্রোর রুট বদল করা হয়েছে । আগেই বউবাজারের ব্যবসায়ীরা মেট্রোর রুট নিয়ে আপত্তি করেছিলেন । এই নিয়ে হাইকোর্টে মামলাও হয়। কিন্তু শেষমেশ রাজ্য সরকারের কথাতেই বদল করা হয়েছে এই রুট। সেকারণেই এই ঘটনার পূর্ণাঙ্গ তদন্ত দাবি করছি ।' পাশাপাশি রুট বদলের ক্ষেত্রে মেট্রো কর্তৃপক্ষকেও আরও সতর্ক হওয়া দরকার ছিল বলে মন্তব্য় করেন বিজেপির এই হেভিওয়েট নেতা।

২০০০ সালের চিঠি পৌঁছল ২০১৯-এ, মেসেজ পেয়ে হতবাক প্রেরক

​​​​​​​এবার ট্রেনেই অ্যাম্বুলেন্স, পুজোর আগেই শিয়ালদহে চালু পূর্ব রেলের প্রণাম, দেখুন ভিডিও
সম্প্রতি দেশের অর্থনীতি নিয়ে বার বার কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে মোদী সরকারকে। খোদ মোদী সরকারের অর্থনীতি নিয়ে সমালোচনা করেছেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং। যা নিয়ে মনমোহনকেও খোঁচা দিতে ছাড়েননি মুকুল। তিনি বলেন, 'মনমোহন সিংয়ের সময় এর থেকে বেশি জিডিপি পড়েছিল । এতে চিন্তার কিছু নেই ।'