অবশেষে তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা দীর্ঘদিনের অভিযোগ নিয়ে মুখ খুললেন পুর ও নগরোন্নয়ন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।  এদিন তিনি বলেন, বিরোধীদের তরফ থেকে সব সময় বলা হয়,মেটিয়াবুরুজ অঞ্চলকে তিনি মিনি পাকিস্তান বলেছেন। অথচ এরকম কোনও ফুটেজ দেখাতে পারবেন না তাঁরা। 

কলকাতার মেয়রের অভিযোগ, সব সময় বিরোধীরা আমাকে বদনাম করার চেষ্টা করছে। একটা কথা নিয়ে রাজনীতি করে চলেছে। আমার বিরুদ্ধে এই ধরনের অভিযোগ এনে  রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে বিরোধীরা। খিদিরপুরের ৭৯ নম্বর ওয়ার্ডে তৃণমূল যুব কংগ্রেসের নেতৃত্বে অনুষ্ঠিত রক্তদান শিবিরে এই কথা বলেন তিনি। ওই শিবিরে উপস্থিত ছিলেন মেয়র ফিরহাদ হাকিম ছাড়াও সাংসদ শুভাশিস চক্রবর্তী, মালা রায় সহ অন্যান্য নেতৃবর্গ। ওই সভায় ফিরহাদ হাকিম বলেন ভারতবর্ষে বিজেপি এখন নোংরা রাজনীতির খেলা করছে, ধর্মে ধর্মে বিভেদ বাঁধিয়ে রাজনৈতিক ফায়দা তোলার চেষ্টা করছে। আমি সবাইকে বলব জাতি-ধর্ম নির্বিশেষে সবাই একজোট হন। 

এই বলেই অবশ্য় থেমে থাকেননি ফিরহাদ। ভাটপাড়ায় তৃণমূলের বোর্ড গঠন নিয়েও মন্তব্য় করেন তিনি। মন্ত্রী বলেন, আজ ভাটপাড়া প্রমাণ করল গুন্ডামি করে ভোটে জেতা যায় না। আমাদের কর্মীদের উপর গুন্ডামি করা হয়েছিল, অর্জুন সিং অত্যাচার করেছিল। বাইরে থেকে শার্প শুটার নিয়ে এসে ভাটপাড়ায় বোমাবাজি করে আতঙ্ক সৃষ্টি করেছিল। সেই সময় মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের প্রশাসন ছিল না। নির্বাচন কমিশনের হাতে সব ছিল। তারপর যখন রাজ্য সরকারের হাতে আবার প্রশাসন এল,প্রশাসনের সক্রিয়তায় এবং একজন ভালো পুলিশ কমিশনারের দক্ষতায় ভাটপাড়া শান্ত হয়েছে।  

মানুষ মাথা তুলে দাঁড়িয়েছে, কনফিডেন্স ফিরে এসেছে। মানুষের কনফিডেন্স ফিরে আসায় বিজেপির বিরুদ্ধে মানুষ নো কনফিডেন্স দেখিয়ে দিয়েছে। বিজেপি আদালতে যাচ্ছে, তাতে কিছু যায় আসে না। আমরা কোর্টে যায়নি মানুষের আতঙ্ক  কেটে যেতে মানুষ নিজেই রায় দিয়েছে।