আশঙ্কা ছিল ষোলো আনা। তবে অষ্টমীর দুপুর বাদ দিলে পুজোয় কিন্তু শহরে তেমন বৃষ্টি হয়নি।  চারদিনের  উৎসব মিটেছে নির্বিঘ্নেই।  এমনকী, বৃষ্টি হয়নি দশমীর দিনেও।  আজ তো আবার দুর্গা কার্নিভাল। শহরের বাছাই করা কয়েকটি পুজোর প্রতিমা নিয়ে শোভাযাত্রা হবে রেড রোডে।  কেমন থাকবে আবহাওয়া? শেষবেলায় বৃষ্টিতে পণ্ড হয়ে যাবে না তো কার্নিভাল? তেমন কোনও সম্ভবনা নেই, দাবি আবহাওয়া দপ্তরের। আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের অধিকর্তা জিকে দাস জানিয়েছেন, শুক্রবার বিকেলে আকাশ মেঘলা থাকবে। তবে বৃষ্টির সম্ভাবনা নেই বললেই চলে। 

আরও পড়ুন-আজ পুজো কার্নিভাল, রেড রোডে প্রস্তুতি কেমন, দেখুন ভিডিও...

প্রকৃতির ভাবগতিক বোঝা এখন সত্য়িই দায়! সাধারণত পুজোর আগেই রাজ্য় থেকে বিদায় নেয় বর্ষা। কিন্তু গত কয়েক বছর ধরে মৌসুমী বায়ুর নির্দিষ্ট সময় থেকে অনেক বেশি দিন সক্রিয় থাকছে। কখনও কখনও আবার ঘুর্ণাবর্তের কারণে প্রলম্বিত হচ্ছে বর্ষা।  এবারও অষ্টমীর দিন বেশ কয়েক পশলা বৃষ্টি হয়েছে শহরে।  নবমী সকালেও দক্ষিণবঙ্গের কয়েকটি জেলায়ও দফায় দফায় বৃষ্টি চলেছে।  দশমী পেরিয়ে গিয়েছে, ইতি পড়েছে বাঙালির প্রাণের উৎসবেও।  কিন্তু দুর্গা কার্নিভাল? সেটা তো এখনও বাকি। তৃণমূল কংগ্রেস ক্ষমতায় আসার পর রেড রোডে রীতমতো শোভাযাত্রা করে শহরের বাছাই করা পুজোর প্রতিমা বিসর্জনের জন্য় নিয়ে যাওয়ার রেওয়াজ চালু করেছেন মুখ্য়মন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়।  এই শোভাযাত্রাই কার্নিভাল নামে পরিচিত।  এই কার্নিভাল এবার চার বছরে পড়ল। 

আরও পড়ুন-মমতার সামনে শতাধিক ঢাকের বাদ্যি, মঞ্চ মাতাতে তৈরি দুর্গা কার্নিভাল...

শুক্রবার বিকেলে রেড রোডে দুর্গা কার্নিভালে অংশ নেবে ৭১টি পুজো কমিটি। প্রতিটি পুজো কমিটির তরফে থাকবে ৩টি করে ট্যাবলো। ত্রয়োদশীর অপরাহ্নে ঢাকের বোলের রীতিমতো উৎসবের চেহারা নেবে তিলোত্তমা। অন্তত তেমনই পরিকল্পনা করে ফেলেছে রাজ্য সরকার। কার্নিভাল দেখতে হাজির থাকবেন দেশ-বিদেশের বহু অতিথিরা। আয়োজনে কোনও খামতি নেই, কিন্তু আশঙ্কা একটাই। বৃষ্টি নামবে না তো? বরুণদেব যদি কৃপা না করেন, তাহলে তো খোলা আকাশের নামে এমন অভিনব কার্নিভালটাই মাটি হয়ে যাবে! এই পরিস্থিতিতে আশার কথাই শোনাল আবহাওয়া দপ্তর।

আরও পড়ুন-অষ্টমীতেই প্রথম দেখা, অষ্টমীতেই বিয়ে...